ঢাকা, ১৯ মে রোববার, ২০১৯ || ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
৫৩

শেখ হাসিনা আমার জন্য মায়ের মমতা দেখিয়েছেন

প্রকাশিত: ১৯:২৪ ১৫ মে ২০১৯  


আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, ‘মহান আল্লাহর অশেষ রহমতে দলীয় নেতা-কর্মী ও দেশবাসীর দোয়ায় আমি সুস্থ হয়ে দেশে ফিরেছি। আমার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা মায়ের মমতা দেখিয়েছেন। সন্তানের জন্য যা যা করতে হয় তিনি তাই আমার জন্য করেছেন।’


তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে কৃতজ্ঞতা জানানোর ভাষা আমার জানা নেই। তবুও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমি অশেষ কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাই। খবর: বাসস

 বুধবার বিকেলে দেশে ফিরে রাজধানীর হযরত শাহ জালাল (র.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভিভিআইপি লাউঞ্জে সাংবাদিকদের   ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।

 

সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা শেষে আড়াই মাস পর দেশে ফিরলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বুধবার ৬টার দিকে তিনি বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান।

আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক ও নৌমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, আহমেদ হোসেন, সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীনসহ দলটির নেতারা সেখানে তাকে স্বাগত জানান।

৬৭ বছর বয়সী ওবায়দুল কাদের হৃদরোগ, ডায়াবেটিস ও শ্বাসতন্ত্রের জটিল রোগ সিওপিডিতে (ক্রনিক অবসট্রাকটিভপালমোনারি ডিজিজ) ভুগছেন।

কাদের গেল ২ মার্চ সকালে শ্বাসকষ্ট নিয়ে ঢাকার বিএসএমএমইউতে ভর্তি হন। এনজিওগ্রামে তার হৃদপিণ্ডের রক্তনালীতে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। এর মধ্যে একটি ব্লক স্টেন্টিংয়ের মাধ্যমে অপসারণ করেন চিকিৎসকরা। অবস্থা কিছুটা স্থিতিশীল হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ৪ মার্চ এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে সিঙ্গাপুরে নেয়া হয়। ভর্তি করা হয় মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে।

কয়েকদিন চিকিৎসার পর অবস্থার উন্নতি হলে ২০ মার্চ কার্ডিও থোরাসিক সার্জন ডা. শিভাথাসান কুমারস্বামীর নেতৃত্বে সেতুমন্ত্রীর বাইপাস সার্জারি হয়। ছয় দিন পর তাকে আইসিইউ থেকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়।

আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতা এক মাস পর হাসপাতাল ছাড়েন। তবে ‘চেকআপের জন্য’ আরো কিছুদিন তাকে সিঙ্গাপুরে থাকার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা। এরপর একটি বাসা ভাড়া করে সেখানে অবস্থান করেন তিনি।


এই বিভাগের আরো খবর