ঢাকা, ২৬ জানুয়ারি মঙ্গলবার, ২০২১ || ১২ মাঘ ১৪২৭
good-food
৬৪

২ সপ্তাহ চিনি খাওয়া বাদ দিন, ম্যাজিকের মতো ফল পাবেন

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ২২:৫০ ৯ জানুয়ারি ২০২১  

চিনি বিষ! এ কথা জেনেও লোভ সামলাতে পারেন না। চোখের সামনে চকোলেট, মিষ্টি দেখলেই টপাটপ গিলে ফেলেন। কিন্তু নিজের দিকটা কখনও ভেবেছেন। চিনির লোভ সামলাতে না পারলে শরীরে বাসা বাঁধতে পারে ডায়াবেটিস। তরতরিয়ে বাড়বে ওজন। তাই এখনই সাবধান!


যে কারণে চিনিতে আসক্তি
বিজ্ঞানীরা বলছেন, প্রাচীনকালে চিনির কোনও ব্যবহার ছিল না। এমনকি গুড় নিষ্কাশন করে তা তৈরির পদ্ধতিও তখন ছিল অজানা। বরং আখের গুড়, মধু এসবই খাওয়া হতো। আর ছিল পায়েস। তাও হতো এগুলো দিয়ে। ধাপে ধাপে ভেঙে রক্তের সঙ্গে মিশতো গুড় বা চিনি।

 

তাদের মতে, সরাসরি রক্তে মিশে মস্তিষ্কে গিয়ে পৌঁছায় এর প্রভাব। সেই সঙ্গে তৈরি হয় হাই ফ্রুকটোজ। যেগুলো নেশা উদ্রেককারী। স্বাদগ্রন্থিকে তা পুরোপুরি তৃপ্ত হওয়ার সিগন্যাল দিতে পারে না। ফলে একসঙ্গে বেশি মিষ্টি খাওয়া হয়ে যায়। নোনতা খেলে তা হয় না।

 

দুই সপ্তাহ চিনি খাওয়া বন্ধ করুন
যেকোনও নেশা হঠাৎ বন্ধ করে দেয়া হলে শরীরের ওপর ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে। চিনিও ব্যতিক্রম নয়। অতিরিক্ত তা খেলে নানা হরমোনের পরিবর্তন, মাথাধরা, ডায়াবেটিস, ওজন বেড়ে যায়। তাই চিনির পরিবর্তে মধু দিয়ে চা, গুড় দিয়ে রুটি এসব খাওয়ার চেষ্টা করুন। 

 

উপরন্তু অতিরিক্ত চিনি খেলে অন্ত্রে গিয়ে ফ্যাটে পরিণত হয়। অর্থাৎ গ্লাইকোজেন ভেঙে ফ্যাট তৈরি করে। এ রিফাইন্ড সুগার রক্তে দ্রুত মিশে যাওয়া ছাড়া মন ভালো রাখে। ফলে মিষ্টি, চকোলেট খেলে মন ভালো হয়ে যায়। যে কারণে ওজন বেড়ে চললেও বুঝতে পারি না। প্রথম কদিন মাথাঘোরা, মেজাজ খিটখিটে হওয়া-এসব লক্ষণ থাকতে পারে। কিন্তু কদিন পর দেখবেন সব ঠিক হয়ে গেছে।

 

যেসব সুফল পাবেন

মন ভালো থাকছে
আগে প্রায়শই মন খারাপ হতো। গপাগপ চকোলেট, কুকিজ খেতেন মন ভালো করতে। এ কদিন চিনি ছাড়া চা খান। তরকারিতেও তা দেবেন না। এমনকি ভালো করেও কোনও চকোলেট মিষ্টি নয়। দেখবেন শরীরও ভালো থাকছে। মেজাজও ফুরফুরে থাকছে। ঘুমও ভালো হবে। সেই সঙ্গে কেক, কুকিজ, প্যাকেজ ফুড দূরে রাখুন।


ত্বক ঝলমল করছে
চিনি খাওয়া কমিয়ে দিলে প্রভাব পড়ে ত্বকে। দেখে মনে হয়, কয়েক গুণ বয়স হঠাৎ করে কমে গেল! কারণ ইনসুলিনের ক্ষরণ বাড়লে মুখে কালচে ছোপ আসে। কিন্তু চিনি খাওয়া বন্ধ করলে তা একেবারেই আসে না। কোষ থাকে তরতাজা। রক্ত সঞ্চালন ভালো হয়। এর প্রভাব পড়ে মুখে।

 

ঘুম ভালো হচ্ছে
চিনি বেশি খেলে ঘুম নষ্ট হয়। কিছুতেই ঘুম আসতে চায় না। কিন্তু কয়েকদিন তা খাওয়া থেকে দূরে থাকলে দেখবেন ঘুম ভালো হচ্ছে। স্নায়ুর উত্তেজনা বশে থাকে। ফলে আজেবাজে চিন্তাও অনেক কম আসে।

 

ওজন কমছে
আলু, চিনি আর ভাত খাওয়া বাদ দিলে ওজন কমবে তরতরিয়ে। যদি চিনির লোভ ছাড়তে পারেন তাহলে তো কথাই নেই। ১৫ দিন তা না খেলে কোনও রকম শরীরচর্চা ছাড়া ওজন কমবে। চিনি না খেলে শরীরে অতিরিক্ত ফ্যাট জমা হবে না। সঙ্গে যদি একটু ডায়েট আর একেসারসাইজ থাকে তাহলে ওজন কমবে তরতরিয়ে।


পিসিওডির সমস্যায়
আজকালকার মেয়েদের মধ্যে খুবই সাধারণ এ পলিসিস্টিক ওভারিয়ান সিনড্রোম। তাই এ রোগের ওষুধের থেকেও বড় দাওয়াই হচ্ছে ওজন কমানো। তা নিয়ন্ত্রণে রাখতেই হবে। সেই সঙ্গে কড়া ডায়েটেও থাকতে হবে। কারণ পিসিওডি থাকলেই ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা বাড়ে। সেই সঙ্গে হরমোনও ঠিকমতো কাজ করতে পারে না। তাই সুস্থ থাকতে প্রসেসড ফুড, চিনি একদমই বাদ দিন।