ঢাকা, ২২ জুলাই সোমবার, ২০১৯ || ৬ শ্রাবণ ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
২৫৯

জীবন থেকে নেয়া

মুনীরউদ্দিন আহমদ

প্রকাশিত: ২৩:২৪ ১৩ জুন ২০১৯  


জীবন ফুলশয্যা নয়, তারপরও জীবন সুন্দর। আপনিই আপনার জীবনের সঙ্গী। জীবনের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলন। জীবনকে সিরিয়াসলি না নিয়ে সহজভাবে গ্রহণ করুন।

জীবনে সফলতাকে যেভাবে পেতে চান, ব্যর্থতাকেও সেভাবে গ্রহণ করতে প্রস্তুত থাকুন। কোনোদিন ভাববেন না যে আপনার জীবনে ব্যর্থতা আসবে না।

জীবন খুবই ছোট। আপনার কর্ম পরিকল্পনায় যা রয়েছে তা এখনই শেষ করার উদ্যোগ নিন, ভবিষ্যতের জন্য ফেলে রাখবেন না। ফেলে রাখলে তা সমাপ্ত করার সময় হয়ত আর পাবেন না।

জীবনকে অর্থবহ করার জন্য, নিজের তুষ্টির জন্য ভালো কিছু করুন, ধ্বংসাত্মক পথ বা চিন্তা পরিহার করুন। তবে অন্যায়ের সাথে আপোষ করবেন না। অপব্যয় করবেন না, যা প্রয়োজন নেই তার পেছনে পয়সার অপচয় সমীচীন নয়।

জীবনের সব যুক্তিতর্কে আপনি জিতবেন এমন আশা না করে সত্যের ওপর প্রতিষ্ঠিত থাকুন। যুক্তিতর্কে রাগারাগি করবেন না। রেগে গেলেন তো হেরে গেলেন।

আল্লাহর ওপর আপনার রাগ হয়? ভাববেন না। আল্লাহ তা অতি সহজে সয়ে নিতে পারেন। শেষ জীবনের জন্য নিজের কাছে পর্যাপ্ত সঞ্চয় রাখুন। এই সঞ্চয় আপনার আত্মবিশ্বাস বাড়াবে। সব দান করে বা বিলিয়ে দেবেন না। এমনও হতে পারে, শেষ বয়সে নিঃস্ব হওয়ার কারণে পরিবারে বা সমাজে আপনার স্থান নাও হতে পারে।

অতীতের দুঃখকষ্ট ভুলে গিয়ে সামনের দিকে তাকান। নিজের সাথে অন্যকে তুলনা করবেন না। আপনি যা এবং আপনার যা আছে তা নিয়ে সন্তুষ্ট থাকুন। কারো সাথে তুলনা করতে গেলে অসুখী হয়ে পড়বেন। আপনার জীবনে চোখের পলকে সব বদলে যেতে পারে। মনে রাখবেন, আল্লাহ চোখের পলক ফেলেন না।

খারাপ লাগলে বিশ্রাম নিন, সাথে গভীর নিঃস্বাস। তা আপনাকে স্বস্তি দেবে।

বিপদ-আপদে ধৈর্য ধরুন এবং সমস্যার মোকাবেলা করুন। মনে রাখবেন, বিপদ-আপদ চিরস্থায়ী নয়, একসময় সুদিন আসবেই।

আপনার সুখশান্তির প্রত্যাশাকে হতাশায় পরিণত করবেন না। আপনার সুখবরের জন্য হয়ত ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করছে। জীবনে এমন কিছু করবেন না যার জন্য পরে আফসোস করতে হয়। জীবনকে আপনার মতো করে সাজিয়ে নিন, যা আপনাকে পরিতৃপ্তি দেবে।

আল্লাহ আপনার যত্ন নেন, ভালোবাসেন, তাই আপনিও আল্লাহকে ভালবাসুন ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করুন। কোনভাবেই অকৃতজ্ঞ হবেন না।

মানুষ ও জীবকে ভালোবাসুন। এতে আপনার মহত্ত্ব প্রকাশ পাবে। সাধ্য মতো দান করুন। কৃপণতা আল্লাহ পছন্দ করেন না। অন্যের দুর্দিনে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন, সহমর্মিতা প্রকাশ করুন।

আপনার সমালোচকদের আপনি সমালোচনা করবেন না। অন্যরা আপনার সম্পর্কে কী ভাবে তা নিয়ে অনর্থক ঘুম হারাম করবেন না। কারো পশ্চাতে গীবত গাইবেন না। স্পষ্টভাষী হয়ে সত্য প্রকাশ করুন, সুন্দর ভাষায় অন্যর ভুল ধরিয়ে দিন। অন্যকে ঈর্ষা বা হিংসা করে সময় নষ্ট করবেন না। এতে সংকীর্ণতা প্রকাশ পায়।

জীবনকে ভালোবাসুন আর সুস্থ থাকার ব্রত নিন। আপনি অসুস্থ হয়ে পড়লে আপনার জীবনের, পরিবারের সব আশা-ভরসা ও পরিকল্পনা নস্যাৎ হয়ে যেতে পারে ।