ঢাকা, ০৫ ফেব্রুয়ারি রোববার, ২০২৩ || ২২ মাঘ ১৪২৯
good-food
১৭৪

তসলিমা নাসরিন, নামেই পরিচিত

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ১৪:১৮ ২৫ আগস্ট ২০২২  

তসলিমা নাসরিন। নামেই পরিচিত। তার নামের আগে কোনো বিশেষণ ব্যবহারের প্রয়োজন নেই। আমি যখন সাপ্তাহিক যায়যায়দিনের সহকারী সম্পাদক, তখন তার লেখা যায়যায়দিনে ছাপা হয়েছে। তিনি দেশত্যাগে বাধ্য হওয়ার আগ পর্যন্ত নিয়মিত তার লেখা যাযাদিনে ছাপা হতো।

 

তসলিমার ভাষা ছিল তীব্র, কখনও কখনও বা প্রচলিত ধারণা অনুযায়ী ছাপার অযোগ্য! কিন্তু আমি তার সব লেখাই ছেপেছি, কখনো কখনো সামান্য সম্পাদনা করতে হয়েছে। এ ব্যাপারে সম্পাদক শফিক রেহমানের পূর্ণ সমর্থন ও অনুমোদন ছিল। যায়যায়দিনে তার লেখা নিয়ে কোনো সমস্যা হয়নি, বিতর্ক হয়নি।

 

তিনি প্রায় প্রতি সপ্তাহে লেখা দিতে যায়যায়দিনের অফিসে আসতেন। তার সঙ্গে আমার দেখা হতো, কথা হতো। একবার কলকাতা কলেজ স্ট্রিটে এক বইয়ের দোকানিকে প্রসঙ্গত বলেছিলাম যে, আমি তসলিমা নাসরিনকে চিনি!

 

সেই দোকানির কি বিস্ময়! একটু দূরে যেতেই তিনি পাশের দোকানিকে ডেকে বললেন, ওই দেখ, ঢাকা থেকে এক চাপাবাজ এসেছে। ও নাকি তসলিমাদিকে চেনে! আমি একটু শরম পেয়েছিলাম বৈ কি! তবে বই বিক্রেতার ওপর রাগ করিনি। হাজার হোক, তসলিমার মতো সেলিব্রেটিকে আমার মতো মানুষের তো চেনার কথা নয়।

 

না, এটা চাপাবাজি নয় যে, আমি তাকে চিনি। সত্যি তার সঙ্গে আমার পরিচয় আছে। আমি চিকিৎসার জন্য কলকাতা গিয়েও তার সঙ্গে দেখা করে দীর্ঘক্ষণ কথা বলেছি। আমার স্ত্রী-পুত্রও সাথে ছিল। ছিল তাপস কুমার দত্ত। তাপসের কাছে হয়তো তখনকার ছবিও আছে৷

 

সেদিন দেশে ফেরার জন্য তসলিমার আকুলতা আমাকে বিহ্বল করেছিল। দেশছাড়া একজন মানুষের কষ্ট আমরা বুঝতে পারিনি, পারছি না। তাকে দেশে ফিরিয়ে আনতে না পারা - আমাদের সম্মিলিত ব্যর্থতা এবং এটা ক্ষমাহীন। আজ জন্মদিনে তাকে অনেক অনেক শুভেচ্ছা।

 

লেখক: বিভুরঞ্জন সরকার

সাংবাদিক ও কলাম লেখক

শিল্প-সাহিত্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর