ঢাকা, ০৯ এপ্রিল বৃহস্পতিবার, ২০২০ || ২৬ চৈত্র ১৪২৬
good-food
১৩২

শামীমাকে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব চাইতে বলেছে বৃটিশ   ট্রাইব্যুনাল

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ০৯:৫৬ ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

আইনি লড়াইয়ে হেরে গেলেন আইএস বধূ খ্যাত শামীমা বেগম। বৃটেনের স্পেশাল ইমিগ্রেশন আপিল কমিশন (সিয়াক) তাকে বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। জানিয়েছে, বংশানুক্রমিকভাবে শামীমা বাংলাদেশের নাগরিক। তাই তার বৃটিশ নাগরিকত্ব বাতিল আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন নয়। একইসঙ্গে বৃটিশ গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়েছে, শামীমা বাংলাদেশের নাগরিকত্ব চাইতে পারেন বলেও মন্তব্য করেছে ওই আপিল কমিশন।


তবে রায়ের প্রতিক্রিয়ায় বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন গণমাধ্যমকে বলেন, রায়টির কথা শুনেছি। এটি আমাদের মাথাব্যথা নয়।
এটি বৃটেনের মাথাব্যথা। শামীমার জন্ম ইংল্যান্ডে, বেড়ে ওঠাও সেখানে। শামীমা কখনো বাংলাদেশে আসেনি। তার বাবাও বাংলাদেশের নাগরিকত্ব ত্যাগ করে বৃটেনের নাগরিকত্ব গ্রহণ করেছেন। শুধু চেহারায় মিল থাকার কারণে কাউকে বাঙালি বলার কোনো যুক্তি নেই।

উল্লেখ্য গত মাসে শামীমা বেগমের বৃটিশ নাগরিকত্ব বাতিল করেছিলো দেশটির সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ। তখন এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আদালতে আবেদন করেন শামীমার আইনজীবী। তিনি শামীমাকে বৃটেনে ফেরার সুযোগ দিতেও অনুমতি চান আদালতের কাছে।

তবে সিরিয়া গিয়ে আইএস জঙ্গিদের বধূ হিসেবে পরিচিত হওয়া শামীমা মামলার প্রথম ধাপে হেরে গেছেন। এ মামলার রায় দেয় দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট মামলার বিচারকাজ হয় এমন আংশিক-গোপন আদালতের একটি ট্রাইব্যুনাল। রায়ে বলা হয়, যেহেতু শামীমা বেগম রাষ্ট্রহীন অবস্থায় নেই তাই তার নাগরিকত্ব কেড়ে নেয়া আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী বে-আইনি নয়। 

জীবনের গল্প বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর