ঢাকা, ১৭ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার, ২০১৯ || ২ আশ্বিন ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
১৪৮

অ্যাপ্লাইড থিয়েটারে প্রথম

এখন শুধুই দেশকে দেবার পালা নবনীতা’র

প্রকাশিত: ২২:৫৩ ২৫ আগস্ট ২০১৯  


তিন বছর বয়সে কবিতা আবৃত্তি দিয়ে প্রথম মঞ্চে ওঠা। এরপর মায়ের হাত ধরে নাচ শিখতে যাওয়া। অ, আ, ক, খ শেখার আগেই তাল,  লয় ছন্দের তালিম নেয়া।  তাই  নাচের সাথেই সবচেয়ে বেশি সখ্য তার। সেই যে শুরু আজ অব্দি নাচের সাথেই পথচলা নবনীতার।  
পুরো নাম নবনীতা চক্রবর্তী। 
দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় অভিজ্ঞতা লাভের সাথে সাথে প্রাপ্তিও ঘটেছে কম নয় । জাতীয় শিশু পুরস্কার ২০০৫ -২০০৮, বঙ্গবন্ধু জাতীয়  শিশু পুরস্কার ১৯৯৯,  জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ পুরস্কার ২০০৬-২০০৮, আন্তঃ বিশ্ববিদ্যালয় স্বর্ণপদক ২০১৪-২০১৫  ইত্যাদি পুরস্কারে ঝুলি ভর্তি। সব মিলিয়ে পুরস্কারের সংখ্যা দু’শতাধিক। 
নবনীতা অংশগ্রহণ করেছেন দেশ বিদেশের নানা সেমিনার ও সিম্পোজিয়ামে। লেখালেখি করছেন বিভিন্ন পত্র পত্রিকা এবং জার্নালে। 
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নাট্যকলায়  স্নাতক শেষ করে  ভারত সরকারের আই.সি. সি. আর বৃত্তিপ্রাপ্ত হয়ে রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে নাটক বিভাগে "অ্যাপ্লাইড থিয়েটার" নিয়ে স্নাতকোত্তর করছেন এই কৃতী শিক্ষার্থী। উপমহাদেশে এই প্রথম কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে অ্যাপ্লাইড থিয়েটার স্নাতকত্তোর পর্যায়ে নাটকের একটি ধারা হিসেবে পঠিত হচ্ছে।  এই বিষয়টি নিয়ে এম. এ. পর্যায়ে বিশেষায়িত হবার সুযোগ এই প্রথম। ছোটবেলা থেকেই আগ্রহ সবসময় ব্যতিক্রমধর্মী কিছুতে। সে আগ্রহ থেকেই অ্যাপ্লাইড থিয়েটার নিয়ে পড়াশোনা। 
অ্যাপ্লাইউড থিয়েটার উপমহাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে  রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে নাটক বিভাগের তত্ত্বাবধানে প্রথম পঠিত হচ্ছে। এই বিষয়টি এতদিন শুধু ইউরোপ - আমেরিকার বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানো হত। পাশ্চাত্যের নাট্যভাবনা প্রাচ্যের রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম।  সেই প্রথম পঠিত বিষয় অ্যাপ্লাইড থিয়েটারে প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রথম শ্রেণীতে প্রথম স্থান অধিকারের গৌরবটিও নবনীতা পুরে নিলেন নিজের ঝুলিতে। 
কলকাতায় থাকাকালীন সময়ে ঝুলি পূর্ণ হয়েছে নানা প্রাপ্তিতে।  ছাত্র প্রতিনিধি হিসেবে অংশ নিয়েছেন বিট্রিশ দূতাবাস ( ভারত) ও গবেষণামূলক সংস্থা OFR এর আয়োজনে  Young Thinkers ' conference   BBIN 2017 - এর ইন্টারন্যাশনাল সেমিনারে। 
অংশগ্রহণ করেছেন পরম্পরা আয়োজিত  world dance congress 2018 - এ । 
"বঙ্গীয় সাহিত্যও সংস্কৃতি সংসদ" আয়োজিত "বিশ্বসভা”আন্তর্জাতিক সেমিনারে নবনীতার নাট্য বিষয়ক প্রবন্ধ পঠিত হয়েছে।  
সেইসাথে নৃত্য পরিবেশনের জন্য পেয়েছেন "বিশ্বসভা স্মারক সম্মাননা" ২০১৯।  বাংলাদেশ উপহাইকমিশন,  কলকাতা কর্তৃক  আয়োজিত বিজয় উৎসব ২০১৮ অনুষ্ঠানে নৃত্য পরিবেশনার জন্য পেয়েছেন "বিজয় সম্মাননা ২০১৮"।  কথা creation আয়োজিত "ভারত- বাংলাদেশ বৈশাখী উৎসব ২০১৯" এ নৃত্য পরিবেশনের জন্য পেয়েছেন "স্মারক সম্মাননা "।  
এছাড়াও নিয়মিত নাট্যচর্চা চালিয়ে যাচ্ছেন।  একাডেমিক থিয়েটারের পাশাপাশি কাজ করছেন গ্রুপ থিয়েটারেও। ঢাকা ও রাজশাহীর মঞ্চে অভিনয়  করছেন নিয়মিত। 
এতকিছুর মধ্যেও নিজ শহরে নির্মাণ করেছেন থিয়েটার স্কুল "নন্দন"। শিল্পকলাকে প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে দেবার লক্ষ্য নিয়ে" নন্দন"  কাজ করে যাচ্ছে।  
ইচ্ছে আছে অনেক বড় পরিসরে কাজ করবার।  নাট্য ও নৃত্যের মেলবন্ধন ঘটাবার। থিয়েটারকে নিয়ে যেতে চান প্রত্যন্ত মানুষের কাছে।  অর্জিত জ্ঞান কাজে লাগাতে চান দেশ ও দশের কল্যাণে। তার এই সাফল্য তাকে অনুপ্রাণিত করবে নতুন সম্ভাবনা সৃষ্টিতে।  দ্রুতই দেশে ফিরছেন। এখন শুধুই দেশকে দেবার পালা কৃতী শিক্ষার্থী - নাট্য-নৃত্যশিল্পী মেধাবী নবনীতার।