ঢাকা, ১৪ জুলাই রোববার, ২০২৪ || ৩০ আষাঢ় ১৪৩১
good-food
৮১

বৃটেনে প্রথম নারী মুসলিম বিচারমন্ত্রী কে এই শাবানা মাহমুদ

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ১৬:৫২ ৭ জুলাই ২০২৪  

বৃটিশ নতুন প্রধানমন্ত্রী স্যার কিয়ের স্টারমার ক্ষমতায় এসেই চমক দেখালেন। শুক্রবার প্রথম দিনেই গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকজন মন্ত্রীকে নিয়োগ দিয়েছেন। এর মধ্যে এবারই প্রথম একজন মুসলিম নারী স্থান পেয়েছেন। তিনি হলেন ব্যারিস্টার শাবানা মাহমুদ। তাকে আইন ও বিচার বিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। 

 

এর আগে বৃটিশ মন্ত্রিপরিষদে কোনো মুসলিম নারী ঠাঁই পাননি। এই দায়িত্বে এর আগে একজনমাত্র নারী দায়িত্বে এসেছিলেন। তিনি সাবেক প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস। শাবানা মাহমুদের জন্ম ১৯৮০ সালের ১৭ই সেপ্টেম্বর ইংল্যান্ডের বার্মিংহামে। তার পিতা মাহমুদ আহমেদ এবং মাতা জুবাইদা আহমেদ।

 

আজাদ কাশ্মীরের মিরপুর এলাকার বাসিন্দা ছিলেন তারা। অর্থাৎ শাবানা মাহমুদ পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত আজাদ-কাশ্মীর বংশোদ্ভূত। তার পিতা মাহমুদ আহমেদ একজন সিভিল ইঞ্জিনিয়ার ছিলেন। তিনি সৌদি আরবের তায়েফে দায়িত্ব পালনের সময় পরিবারের সঙ্গে সেখানে ১৯৮১ থেকে ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত বসবাস করেন শাবানা। এরপরে তিনি বড় হন বার্মিংহামে। তিনি ইংরেজির পাশাপাশি অনর্গল উর্দু এবং মিরপুরি ভাষায় কথা বলতে পারেন। তার মা একটি মুদি দোকানে কাজ করতেন। একপর্যায়ে তার পিতা মাহমুদ স্থানীয় লেবার পার্টির চেয়ারম্যান হন।

 

টিনেজার অবস্থায় স্থানীয় নির্বাচনে পিতা মাহমুদকে প্রচারণায় সহায়তা করতে থাকেন শাবানা। ২০২৪ সালে তিনি নিক রবিনসনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, যদিও সবসময় তার জীবনের আকাঙ্ক্ষা ছিল রাজনীতি নিয়ে, তবু তিনি তরুণ বয়সে একজন ব্যারিস্টার হতে চেয়েছেন। ২০১০ সালে তিনি প্রথমবার একজন মুসলিম নারী হিসেবে হাউস অব কমন্সে যান।

 

একই বছর আরও দু’জন নারী পার্লামেন্ট সদস্য হন। তারা হলেন বাংলাদেশি রুশনারা আলী ও পাকিস্তানি ইয়াসমিন কুরেশি। এরপর এবারে লেবার পার্টির ভূমিধস জয়ের পর শাবানা মাহমুদকে প্রধানমন্ত্রী স্টারমার বানিয়েছেন বৃটেনের প্রথম মুসলিম নারী বিচারমন্ত্রী। শুধু তা-ই নয়, তিনি বৃটেনের ইতিহাসে দ্বিতীয় নারী ‘লর্ড অব চ্যান্সেলর’ পদে অধিষ্ঠিত হলেন।