ঢাকা, ১৩ আগস্ট বৃহস্পতিবার, ২০২০ || ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭
good-food
১২৯৩

বিজয় দিবসের চেতনা, তরুণ প্রজন্মের অঙ্গীকার

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ২২:২২ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯  

১৯৭১ সালে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে বিজয় অর্জনের মাধ্যমে বিশ্বের দরবারে স্বাধীন সার্বভৌম দেশ হিসেবে পরিচয় লাভ করে বাংলাদেশ। আমাদের জাতীয় জীবনে বিজয় দিবসের গুরুত্ব ও তাৎপর্য অনস্বীকার্য। প্রতিবছর দিবসটি উদ্যাপনের মধ্য দিয়ে তরুণ প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস  এবং পূর্ব পুরুষদের আত্মত্যাগের মহিমা সম্পর্কে সচেতন হয়ে ওঠে। তারা স্বাধীনতা সংগ্রাম, বাঙালি জাতিসত্ত্বার ইতিহাস-ঐতিহ্য, ভাষা-সংস্কৃতি, প্রভৃতি সম্পর্কে সম্যক জ্ঞান অর্জন করে। ফলশ্রুতিতে জাতিকে বৈশ্বিক আঙ্গিকে পরিচয় করিয়ে দেয়ার প্রয়াস পায়। 
মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে অনেক গবেষণাধর্মী কাজ হচ্ছে। কিন্তু এ প্রচেষ্টা ও উদ্যোগকে আরও জোরদার ও কার্যকরী করতে হবে। যেন পরবর্তী প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধকে অন্তরে ধারণ করতে পারে।  মুক্তিযুদ্ধ বাঙালি জাতির এক চেতনার নাম। আর বিজয় দিবস সেই চেতনাকে ছড়িয়ে দিয়েছে কোটি বাঙালির প্রাণে। একাত্তরের স্বাধীনতা সংগ্রাম আমাদের শিখিয়েছে কিভাবে অন্যায়, অবিচার, শোষণ, নিপীড়নের বিরুদ্ধে গর্জে উঠতে হয়। প্রতিবছর বিজয় দিবস আমাদের মনে অন্যায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার প্রেরণা জোগায়। তরুণ প্রজন্মের উচিত লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বিজয়ের চেতনায় উদ্দীপ্ত হয়ে দেশ বিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা। 
বাংলাদেশি হিসেবে প্রত্যেকেরই এই দিনটির প্রতি কিছু কর্তব্য রয়েছে। শুধু বিজয় দিবসের একটি দিনেই নয়, বরং বিজয়ের চেতনায় উদ্দীপ্ত হয়ে প্রত্যেক মানুষের উচিত সারাবছরই দেশ-জাতি, স্বাধীনতা-সার্বোভৌমত্বের পক্ষে নিজ নিজ অবস্থানে থেকে কাজ করে যাওয়া। বিজয় দিবসের সঠিক ইতিহাস সংরক্ষণ ও প্রচারে জাতীয়ভাবে উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। যারা স্বাধীনতা সংগ্রাম ও বিজয়ের ইতিহাস বিকৃত করে পরবর্তী প্রজন্মকে লক্ষ্যভ্রষ্ট করতে সচেষ্ট তাদের চিহ্নিত করে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া জাতীয় দায়িত্ব ও কর্তব্য।
বিজয় দিবস আমাদের জীবনে একই সঙ্গে আনন্দের আবার বেদনারও দিন। প্রতিবছর দিবসটি আমাদের মাঝে ঘুরে ফিরে এসে স্বাধীনতা সংগ্রামে জীবন উৎসর্গকারী লাখো শহীদের স্মৃতি স্মরণ করিয়ে দিয়ে যায়। কাজেই স্বাধীনতার অর্ধশত বছরে এসে নব প্রজন্মের কাছে আমাদের অঙ্গীকার---
এবারের বিজয় দিবসের অঙ্গীকার
শান্তিপূর্ণ দেশ গড়ার।
তরুণ সমাজ শপথ নিন
সন্ত্রাসী আর লুটেরা সিন্ডিকেটদের কবর দিন।
কৃষক সমাজের ঘরে ফসল
বিজয় দিবস উদযাপন হোক সফল।
লেখক মোহা: জালাল উদ্দীন, সহকারী অধ্যাপক, ইংরেজী বিভাগ, উত্তরা কমার্স কলেজ।     
 

সিটিজেন জার্নালিজম বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর