ঢাকা, ০২ মার্চ মঙ্গলবার, ২০২১ || ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭
good-food
৪২

মঙ্গলের মাটি ছোঁয়ার অপেক্ষায় নাসা

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ২২:০৬ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

প্রহর গুণছেন বিশ্ববাসী। প্রথমবার মঙ্গলগ্রহের মাটি ছোঁয়ার অপেক্ষায় নাসার স্বপ্নের যান পারসিভিয়ারেন্স রোভার। বাংলাদেশ সময় শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) লালগ্রহের মাটিতে নামছে সেটি। সাত মাস আগে যাত্রা করে এটি। অবশেষে সেখানে নামছে মহাকাশযানটি।

 

রোভারে রয়েছে ল্যান্ডার ভিশন সিস্টেম এবং টেরেন রিলেটিভ নেভিগেশন। এর যাত্রাই ছিল ২০২০ সালে নাসার সবচেয়ে বড় মিশন। এতে রিয়েল টাইম ছবি তুলে রাখার স্বয়ংক্রিয় যন্ত্র আছে। মঙ্গলযানটিতে রয়েছে বিশেষ সফটওয়্যার। যা একে পছন্দমতো স্থান নির্বাচন করে নামতে সাহায্য করবে।

 

মঙ্গলে নিবিড় গবেষণা  চালাবে রোভার। এ গ্রহের মাটিতে কি কি উপাদান রয়েছে, তা পর্যবেক্ষণ করবে সেটি। এজন্য তাতে রয়েছে বিশেষ যন্ত্র। যার নাম ‘এমওএক্সআইই’। এর সাহায্যে লালগ্রহের বায়ুমণ্ডলে অক্সিজেন তৈরি করা যাবে বলে জানিয়েছেন নাসার বিজ্ঞানীরা। 

 

পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে মঙ্গলের মাটি নিয়ে পৃথিবীর বুকে ফিরবে রোভার। ওয়াশিংটনে নাসা সদরদফতরে কর্মরত বিজ্ঞানী থমাস জুরবুচেন এ মিশনের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। তিনি বলেন, রোভার আমাদের স্বপ্নের মহাকাশযান। সেখানে প্রাণের অস্তিত্ব রয়েছে কি-না, তা খতিয়ে দেখবে এটি।

 

২০২০ সালের ২৭ জুলাই এ মঙ্গল-অভিযানের কথা ছিল রোভারের। তবে একাধিক কারণে তা পিছিয়ে ৩০ জুলাই যাত্রা করে এটি। ওই দিন বাংলাদেশ সময় বিকাল ৫টা ৫০ মিনিটে মহাকাশে পাড়ি দেয় সেটি।

 

আটলাস ভি-৫৪১ রকেটে চেপে ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে এ গ্রহের উদ্দেশে পাড়ি জমায় রোভার। নির্ধারিত সময় ১৮ ফেব্রুয়ারি সেখানে নামছে এটি। নাসার দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ার জেট প্রপালশিয়াল ল্যাবরেটরি থেকে সরাসরি তা সম্প্রচার করা হবে।

 

সারাবিশ্বের মানুষ ভার্চুয়ালি রোভারের ল্যান্ডিং দেখতে পারবেন। স্থানীয় সময় সোয়া ২টায় এ সম্প্রচার শুরু হবে। নাসা টিভি পাবলিক চ্যানেল এবং তাদের ওয়েবসাইটে তা প্রদর্শিত হবে। এছাড়া সংস্থার অ্যাপ, ইউটিউব, টুইটার, ফেসবুক, লিঙ্কডিন, টুইচ, ডেইলি মোশনে এ ভিডিও দেখা যাবে।