ঢাকা, ১৯ জানুয়ারি মঙ্গলবার, ২০২১ || ৬ মাঘ ১৪২৭
good-food
৯৮

এসএসসি পরীক্ষা জুনে, এইচএসসি জুলাই-আগস্টে

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ২১:৪৯ ২৯ ডিসেম্বর ২০২০  

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, আগামী বছরের জুনে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা এবং জুলাই-আগস্টে এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। মঙ্গলবার বই বিতরণ ২০২১ ও শিক্ষা সংক্রান্ত সমসাময়িক বিভিন্ন ইস্যুতে গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের সঙ্গে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

 

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে বন্ধ থাকায় আগামী বছরের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতির জন্য সীমিত আকারে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ভাইরাস পরিস্থিতির কারণে পাঠ্যসূচি কাটছাঁট করে আগামী ফেব্রুয়ারি থেকে এপ্রিল সময়সীমার ওপর ভিত্তি করে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান করা হবে। এ সিলেবাসেই জুনের মধ্যে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা হতে পারে। একইভাবে পাঠ্যসূচি সংক্ষিপ্ত করে এইচএসসি পরীক্ষাও জুলাই বা আগস্টে নেয়ার বিষয়েও আলোচনা হয়েছে।

 

এইচএসসির পরীক্ষার ফলাফল সম্পর্কে তিনি বলেন, ২০২০ শিক্ষাবর্ষের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল তৈরি আছে। এ সংক্রান্ত অধ্যাদেশ জারি করা হলেই ২০২১ সালের জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহের মধ্যে ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

 

ডা. দীপু মনি বলেন, চলতি বছর জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা না হওয়ায় বোর্ডগুলো থেকে শিক্ষার্থীদেরকে সনদ দেয়া হবে। রোল নম্বরের পরিবর্তে আইডি কার্ড সিস্টেম চালু হবে যা শিক্ষার্থীরা সারাজীবন বহন করতে পারবে। এ রোল নম্বরের কারণে অনভিপ্রেত যে প্রতিযোগিতা হয়; তার অবসান হবে। আমরা চাইছি প্রতিযোগিতা নয়, সহযোগিতার মধ্য দিয়েই যেন একজন শিক্ষার্থী সামনে এগিয়ে যেতে পারে। এজন্য আইডি প্রক্রিয়া চালু হবে।

 

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এবার করোনার কারণে বছরের প্রথম দিনে বই উৎসব হচ্ছেনা। শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠ্যবই দেয়া হবে। ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রতি ক্লাসে তিনদিন করে মোট ১২ দিনে এসব বই বিতরণ করা হবে যাতে বই সংগ্রহ করতে গিয়ে বড় ধরনের জনসমাবেশ না ঘটে। বরাবরের মতো ৩১ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বই বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন।

 

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সমতা আনা ও গুণগতমান নিশ্চিত করা নিয়ে এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, এবার লটারীর মাধ্যমে ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হচ্ছে। এতে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বৈষম্য তৈরি হচ্ছে। অনেক স্কুল ভালো ফলাফল করছে, অনেক স্কুল আবার অপেক্ষাকৃত কম ভালো ফলাফল করছে। এই তুলনামূলক সংকট নিরসন এবং বৈষম্য দূর করতে আগামী বছর থেকে কিছু পরিকল্পনা গ্রহণ করা হবে।

 

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব ও কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব উপস্থিত ছিলেন।