ঢাকা, ০৭ জুন রোববার, ২০২০ || ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
good-food
৭৩

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে ক্লাস-পরীক্ষা-ভর্তি

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ১০:২৩ ১ মে ২০২০  

মরণঘাতি করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে লকডাউনে পুরো দেশ। এমন পরিস্থিতিতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম চালানোর অনুমতি দিচ্ছে সরকার। গুণগত মান বজায়সহ এজন্য বেশকিছু শর্ত মেনে এসব কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে।

 

কী প্রক্রিয়ায় এসব বিশ্ববিদ্যালয়কে সেই অনুমোদন দেওয়া হবে, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) তা নির্ধারণ করে দিয়ে শিগগিরই নির্দেশনা জারি করবে।

 

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির সঙ্গে বৃহস্পতিবার ইউজিসি, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।

 

দেশে এখন ১০৫টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন থাকলেও বেশ কয়েকটিতে এখনও শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়নি।

 

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পর গত ২৬ মার্চ সরকার সাধারণ ছুটি শুরুর পর তার মেয়াদ ধাপে ধাপে বাড়ছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হবে না বলে ইতোমধ্যে ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

এই পরিস্থিতিতে কেউ কেউ উদ্যোগ নেওয়ার পর দেশের সব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে পরীক্ষা গ্রহণ, মূল্যায়ন ও শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ রাখতে গত ৬ এপ্রিল নির্দেশনা দিয়েছিল ইউজিসি।

 

এসব শর্তের মধ্যে অনলাইনে পরীক্ষা নেয়া হলেও বিশ্ববিদ্যালয় খুললে পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন করা অথবা অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে নম্বর প্রদান করা, কুইজ আয়োজন, ওপেন বুক পরীক্ষা ও গুণগত মান বজায় রেখে স্ব স্ব বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মাধ্যমে পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন করার পরামর্শ দেন শিক্ষামন্ত্রী।

 

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে অনলাইন পদ্ধতিতে নতুন ভর্তি শুরুর প্রস্তাব করা হলে আলোচনার মাধ্যমে ইউজিসির নির্দেশনা মেনে সব কার্যক্রম করার নির্দেশ দেন তিনি।


এ সময় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে কতদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হবে তা বলা যাচ্ছে না। এ জন্য দেশের সব সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে অনলাইনের আওতায় ক্লাস কার্যক্রম শুরুর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। যাদের সক্ষমতা নেই ইউজিসিরর সহযোগিতায় সেই পরিবেশ তৈরি করতে বলা হয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুললেও অনলাইন কার্যক্রম চালু রাখতে হবে। ছুটি দীর্ঘায়িত হলে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন করে সেশনজটে না পড়তে পরীক্ষা ও উত্তরপত্র মূল্যায়নের প্রস্তুতি নেয়ারও পরামর্শ দিয়েছেন দীপু মনি।

 

কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা ছাড়াই সেমিস্টার শেষ করে সার্টিফিকেট দেয়া হলে তা বাতিল করতে বলা হয়েছে। এছাড়া বন্ধের মধ্যে শিক্ষকদের চাকরিচ্যুত, বেতন কমিয়ে না দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

 

করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে দেশের সকল সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় অনির্ধারিত ছুটি ঘোষণা হওয়ায় নতুন করে সেশনজট সৃষ্টির আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। 

 

সভায় উপস্থিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান বলেন, মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আমাদের বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে যেসব আলোচনা হয়েছে সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে মন্ত্রণালয়। তবে শিক্ষামন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী অনলাইন কার্যক্রমের বিষয়ে ইতোমধ্যে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এটি নিয়ে স্টাডি চলছে, সব ধরনের সক্ষমতা যাচাই সাপেক্ষে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

 

এ বিষয়ে ইউজিসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক কাজী শহীদুল্লাহ  বলেন,  শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো আরও অনেক দিন বন্ধ থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এজন্য অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার ওপর অনেকেই জোর দিয়েছেন। কীভাবে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে অনলাইনের মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার অনুমোদন দেওয়া হবে ইউজিসি সে বিষয়ে শিগগিরই একটি নির্দেশনা জারি করবে বলেও জানান তিনি।

 

তিনি বলেন, চলমান প্রতিকূল পরিস্থিতিতে কীভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠদান কার্যক্রম অব্যাহত রাখা যায় সেসব বিষয়ে বিস্তারিত  আলোচনা হয়েছে। এ বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বেশ কিছু দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। পাবলিক-প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।