ঢাকা, ২৪ নভেম্বর মঙ্গলবার, ২০২০ || ১০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৭
good-food
৬২

টুইটারেও নীরব ট্রাম্প

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ২০:২৪ ৫ নভেম্বর ২০২০  

একের পর এক রাজ্য হাতছড়া হচ্ছে ডোনাল্ড ট্রাম্পের। তবু নীরব তিনি। তার হয়ে মামলা-মোকদ্দমা করছে প্রচার শিবির। কিন্তু সরাসরি কিছু বলছেন না বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট। 

 

শুধু এক্ষেত্রেই নয়, সোশ্যাল মিডিয়াতেও নিশ্চুপ ট্রাম্প। সাধারনত, টুইটারে ভীষণ সক্রিয় থাকেন তিনি। বরাবরই তাকে ঘণ্টায় ঘণ্টায় টুইট করতে দেখা গেছে। সবসময় নিজের ও দলের অবস্থান জানান দিয়েছেন।

 

কিন্তু গেল ১১ ঘণ্টায় ট্রাম্পকে কোনো টুইট করতে দেখা যায়নি। যদিও এর আগেও তাকে স্বরূপে দেখা গেছে।

 

শুরু থেকেই নির্বাচনী প্রচার সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়াদি টুইটারে শেয়ার করতে দেখা গেছে ট্রাম্পকে। তবে মাহেন্দ্রক্ষণ আসার সঙ্গে সঙ্গে যেন গুটিয়ে যান তিনি। 

 

ভোটের দিন (৩ নভেম্বর, মঙ্গলবার) ট্রাম্পকে কোনো টুইট করতে দেখা যায়নি। অবশ্য আগেই চুপ হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। এর আগে রিপাবলিকান প্রার্থী সবশেষ টুইট করেন ২৭ অক্টোবর।

 

তবে ভোটের দ্বিতীয় দিন (৪ নভেম্বর, বুধবার) আবার টুইটারে সরব হন ট্রাম্প। ওই দিন চারটি টুইট করেন তিনি। সেগুলোতে জয়ের ব্যাপারে আশাব্যঞ্জক বার্তা দিতে দেখা যায় তাকে।

 

পরের দিন (৫ নভেম্বর, বৃহস্পতিবার) সকাল পর্যন্ত মাধ্যমটিতে ট্রাম্পের প্রাণবন্ত উপস্থিতি দেখা গেছে। এসময়ে তাকে ১২বার টুইট করতে দেখা গেছে। এর বেশিরভাগেই পোস্টাল ভোট নিয়ে ক্ষোভ ঝেড়েছেন তিনি।

 

সকাল গড়িয়ে দুপুর হলেই টুইটার থেকে সরে যান ট্রাম্প। এরই মধ্যেই গুরুত্বপূর্ণ দুই ব্যাটলগ্রাউন্ড উইসকনসিন ও মিশিগান জিতে যান ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন। 

 

এই দুই অঙ্গরাজ্যে জয়ের ব্যাপারে ভীষণ আশাবাদী ছিলেন ট্রাম্প। কিন্তু দুটিতেই জিতে ইলেকটোরাল ভোট ২৬৪তে নিয়ে যান বাইডেন। আর ২১৪তে পড়ে থাকেন তিনি।

 

উইসকনসিন ও মিশিগানে ইলেকটোরাল ভোট যথাক্রমে ১০ ও ১৬। এগুলো পেলেই ফলাফল ভিন্ন হতে পারতো। কারণ, এই দুটি অঙ্গরাজ্যের ফলাফলের আগে বাইডেনের সঙ্গে ট্রাম্পের ব্যবধান ছিল ২৩৮ ও ২১৩।

 

এই ২৬টি ভোট পেলেই বাইডেনকে টপকে যেতেন ট্রাম্প। তার ইলেকটোরাল ভোট হতো ২৩৯।