ঢাকা, ১৮ জুন শুক্রবার, ২০২১ || ৪ আষাঢ় ১৪২৮
good-food
৯৪

মুক্তিযোদ্ধার নামে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গাছের নামকরণ

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ২৩:৪৪ ৭ মে ২০২১  

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কেটে ফেলার জন্য লাল ক্রস এঁকে দেয়া বাকিগুলো বাঁচাতে প্রতিটি গাছকে একেকজন খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নামে নামকরণ করা হয়েছে। কয়েক দশকের পুরনো এই গাছগুলো বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ, পাকিস্তানি হানাদারদের আত্নসমর্পণসহ আমাদের স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের অনেক স্মৃতির স্বাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। 

 

যেমনটা জানা যাচ্ছে স্মৃতিবিজড়িত এগুলো কেটে এখানে অনেক রেস্টুরেন্ট বা বিনোদন কর্ণার বানানোর ষড়যন্ত্র চলছে। আমরা জানি, আমাদের স্বাধীনতা ও গৌরবের ধারক এই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানকে ধ্বংসের চেষ্টা অতীতেও হয়েছে, উদ্যানের অংশে বানানো হয়েছে শিশুপার্কসহ ছোট বড় স্থাপনা। তাই আমরা গাছ কেটে উদ্যানে আর কোনও কংক্রিটের স্থাপনা চাইওনা। 


আমরা চাই সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ঘিরে আমাদের স্বাধীনতা, বিজয় ও গর্বের স্মারকগুলো বেষ্টিত থাক সবুজ গাছে গাছে। স্বাধীনতার ৫০ বছরেও আমরা এমন আরেকটি উদ্যান বানাতে পারিনি বরং নগরায়নের নামে ধ্বংশ করেছি অনেক শ্যামলী নিসর্গ। আমরা নগরীর ফুসফুস খ্যাত এই উদ্যানটিকে আর বৃক্ষশূন্য হতে দিতে চাই না। 

 

ফলে গাছগুলোকে বাঁচানোর প্রাণপণ চেষ্টার অংশ হিসেবে আমরা প্রতিটি গাছকে দেশের একেকজন বীর সন্তানের নামে নামকরণ করেছি। তবুও যদি কেউ এই এগুলোতে করাত চালায় বা চালানোর নির্দেশ দেয়, তাহলে ধরে নিবো সে বা তারা আমাদের মুক্তিযুদ্ধ, ৭ মার্চের ভাষণ, স্বাধীনতা, বিজয় ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদেরকে ধারণ করে না। 


গাছগুলোকে এভাবেই প্রতিদিন পাহারা দিয়ে রাখা হবে। সেলোকে বাঁচাতে প্রাণপণে লড়ে যেতে চান প্রকৃতিপ্রেমীরা।

 

লেখক : আহসান রনি,

সভাপতি, গ্রীন সেভার্স।