ঢাকা, ১৮ জুন শুক্রবার, ২০২১ || ৪ আষাঢ় ১৪২৮
good-food
৬৫

যেভাবে ওয়াই-ফাই-এর স্পিড বাড়াবেন

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ২০:১৩ ১০ জুন ২০২১  

বর্তমানে লকডাউনের দরুন 'ওয়ার্ক-ফ্রম-হোম' এবং ই-লার্নিং -এর জন্য ইন্টারনেটের ব্যবহার অনেকাংশে বেড়ে গিয়েছে। তার উপর আবার সর্বক্ষণ গৃহবন্দী হয়ে থাকার জন্য প্রত্যেকেই ভিড় জমাচ্ছে ওটিটি এবং সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলোতে। 


কিন্তু এসব ক্রিয়াকলাপ সাবলীলভাবে করতে যে প্রকারের ইন্টারনেট স্পিড দরকার তা যদি আপনার ওয়াই-ফাই ডিভাইস সরবরাহ করতে না পারে তাহলে মুশকিল। তাই আজ আমরা আপনাদের এমন কয়েকটি কৌশল বলবো যেগুলো অনুসরণ করলে আপনার ওয়াই-ফাই -এর স্পিড তুলনামূলকভাবে বৃদ্ধি পাবে। 


ফলে আপনিও অনলাইন মিটিং থেকে শুরু করে মুভি ডাউনলোড পর্যন্ত সবকিছুই করতে পারবেন কোনো ঝুটঝামেলা ছাড়াই। তাহলে চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক কীভাবে বাড়ানো যাবে ওয়াই-ফাই স্পিড।


আপনার ওয়াই-ফাই -এর স্পিড যদি কম হয় তাহলে, নীচে উল্লিখিত কয়েকটি পদক্ষেপ অনুসরণ করুন-
১. রাউটারটিকে একটি ভালো জায়গায় রাখুন।
২. রাউটারটিকে আপডেটেড রাখুন।


৩. একটি ওয়াই-ফাই বুস্টার/ ওয়াই-ফাই এক্সটেন্ডার/ ওয়াই-ফাই রিপিটার কিনে নিন।
৪. প্রয়োজনে ওয়াই-ফাই চ্যানেল পরিবর্তন করুন।
৫. রাউটারের অ্যান্টেনাগুলো সঠিক অ্যাঙ্গেলে আছে কিনা তা দেখে নিন।


৬. কখনও কখনও ওয়াই-ফাই ডিভাইসকে রিবুট করতে ভুলবেন না।
৭. আপনার ব্রডব্যান্ডের ডেটা কেউ চুরি করছে কিনা সেই ব্যাপারে আগে নিশ্চিত হন।
৮. আপনার ইন্টারনেট প্যাকেজটিকে আপগ্রেড করুন।


৯. তবু যদি স্পিড না বাড়ে তাহলে আপনার ইন্টারনেট পরিষেবা সরবরাহকারীর সঙ্গে যোগাযোগ করুন।
ওয়াই-ফাই -এর সিগন্যাল বাড়ানোর জন্য কী কোনও অ্যাপ আছে?


একটি অন্যতম জনপ্রিয় অ্যান্ড্রয়েড ওয়াই-ফাই বুস্টার অ্যাপ্লিকেশন হলো ' ওয়াই-ফাই  অ্যানালাইজার'। এটি আপনাকে আপনার অঞ্চলের ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্কগুলোকে প্রদর্শন করবে, যাতে আপনি ক্লুটারড চ্যানেলের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করতে পারেন।


কীভাবে ওয়াই-ফাই সিগন্যাল পরীক্ষা করবেন?
অ্যান্ড্রয়েড ইউজাররা ওয়াই-ফাই সিগন্যাল ' ওয়াই-ফাই  অ্যানালাইজার' অ্যাপের মাধ্যমে পরীক্ষা করতে পারে। তার জন্য প্রথমে আপনাকে অ্যাপটিকে ওপেন করতে হবে। 


এরপর সেখানে উপলব্ধ নেটওয়ার্কগুলোর একটি তালিকা দেওয়া হবে, সেটি দেখে নিন। জানিয়ে রাখি, এই প্রদর্শিত নেটওয়ার্কগুলোর স্ট্রেনথকে 'ডিবিএম' হিসেবে দেখানো হবে।


বুস্টার কী স্পিড বাড়াতে পারে?
ওয়াই-ফাই বুস্টার এবং ওয়াই-ফাই এক্সটেন্ডার্স উভয়ই আপনার ইন্টারনেটের স্পিড বাড়াতে সক্ষম। কারণ, সিগন্যালকে আরো এক্সটেন্ড বা প্রসারিত করা হলে তা, আপনার ডিভাইসকে আরো ভালো কানেকশন দেওয়ার পাশাপাশি হাই-স্পিড ইন্টারনেটও সরবরাহ করবে।


গুগল ওয়াই-ফাই অ্যাপের সাহায্যে কীভাবে আপনার ওয়াই-ফাই -এর সিগন্যাল পরীক্ষা করবেন?
১. প্রথমেই গুগল ওয়াই-ফাই অ্যাপটিকে ওপেন করুন।
২. এর পর 'সেটিংস অ্যান্ড অ্যাকশনস' অপশনে ট্যাপ করুন।


৩. এবার, 'টেস্ট ওয়াই-ফাই' অপশনে ট্যাপ করুন।
৪. পরিশেষে, অ্যাপটি তার সঙ্গে সংযুক্ত প্রত্যেকটি ডিভাইসকে এক এক করে পরীক্ষা করবেন। প্রক্রিয়াটি হয়ে গেলে প্রতিটি ডিভাইসের ইন্টারনেট স্পিড কতটা তা স্ক্রিনে দেখিয়ে দেওয়া হবে।


স্পিড কম হওয়ার কারণ কী?
বিভিন্ন কারণবশত ওয়াই-ফাই -এর স্পিড কমে যেতে পারে। রাউটার বা মডেমে কোনো সমস্যা দেখা দিলে ইন্টারনেট স্পিড আপনা থেকে কমে যাবে। আবার, কেবল লাইনের সিগন্যাল স্ট্রেনথ, ওয়াই-ফাই সিগন্যাল অথবা ধীরগতির ডিএনএস সার্ভারের জন্যও ওয়াই-ফাই-এর স্পিড কম হতে পারে।