ঢাকা, ২৩ ফেব্রুয়ারি রোববার, ২০২০ || ১১ ফাল্গুন ১৪২৬
good-food
৫৭৪

ইউসিমাস ক্ষুদে জিনিয়াসদের বিশ্বজয়

৮ মিনিটে ২০০ অংকের সমাধান!

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ২১:৫৯ ১৭ ডিসেম্বর ২০১৯  

বিশ্বকে তাক লাগালো বাংলাদেশের ক্ষুদে গণিত জিনিয়াসরা। ইউসিমাস অ্যাবাকাস ও মেন্টাল অ্যারিথমেটিক আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অবাক করা সাফল্য ছিনিয়ে আনলো তারা।

ইউসিমাস মালয়েশিয়ার উদ্যোগে প্রতিবছরের মতো এবারো ৭-৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয় ২৪তম অ্যাবাকাস ও মেন্টাল অ্যারিথমেটিক আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা। কম্বোডিয়ার ফেনম পেং-এর দ্য প্রিমিয়াম সেন্টার, সেন সক্-এ অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় বিশ্বের ৫০টিরও বেশি দেশের ৫০০০-এর অধিক শিক্ষার্থী অংশ নেয়।
এতে বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন লেভেলে অংশগ্রহণ করে ১৬ ক্ষুদে ইউসিমাস জিনিয়াস। প্রতিযোগিতায় মাত্র ৮ মিনিটে ২০০ অংকের সমাধান করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দেয় তারা।
আন্তর্জাতিক এই প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশের ক্ষুদে জিনিয়াস তাহমিদ আল আসাদ। প্রথম রানার আপ শেখ ইসতিয়াক আহমেদ, আহমেদ নওফেল জাকি, জারা নাসরা দাইয়ান, বিবেক দেবনাথ। দ্বিতীয় রানার আপ আহনাফ মুনতাসির, এস কে সুমাইয়া রহমান নিরা, শেখ রাইয়ান আহমেদ, দিয়ানাহ দিফাআ, ইশরাক তানভির, ব্রিজেশ দেবনাথ। 
তৃতীয় রানার আপ আনিসা মেহজাবিন শোহা, রুদাকি সোবহান, নামিরা কাজী, ইবনুল আদিব এবং মেরিট তামজিদ আল আসাদ এ স্থান অর্জন করে।
প্রসঙ্গত, বিশ্বের সর্ববৃহৎ ও সর্বশ্রেষ্ঠ বিজ্ঞানভিত্তিক শিশু মেধাবিকাশ প্রতিষ্ঠান ‘ইউসিমাস’। এটি বিশ্বের ৮০টিরও বেশি দেশে স্বনামধন্য শিশু মেধাবিকাশ প্রতিষ্ঠান হিসেবে সফলভাবে পরিচালিত হচ্ছে।

এবার ইউসিমাস’র এই আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতাটি ‘বিশ্বের সর্ববৃহৎ এ্যাবাকাস প্রশিক্ষণ কেন্দ্র’ হিসেবে এশিয়া বুক অব রেকর্ড এবং গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড-এর জন্য অন্তর্ভুক্ত হয়।
এই প্রতিযোগিতায় উপস্থিত ছিলেন মালয়েশিয়া ইউসিমাস’র প্রতিষ্ঠাতা প্রফেসর ড. ডিনো ওয়াং। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দেশটির মন্ত্রী ড. হ্যাং চুয়াং ন্যারন (শিক্ষা, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয় - কম্বোডিয়া)। এছাড়া ৮০ টির অধিক দেশের ইউসিমাস প্রতিনিধিরা এতে অংশ নেন। 
ইউসিমাস বাংলাদেশ লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও ন্যাশনাল ফ্রানচাইজি মো. আহসান কবির এবং পরিচালক ও প্রধান প্রশিক্ষক জান্নাতুল ফেরদৌসী  এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। 
আন্তর্জাতিক এই প্রতিষ্ঠানটি প্রতিবছর হাজার হাজার শিশু শিক্ষার্থী নিয়ে বিশ্বের ভিন্ন ভিন্ন দেশে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে। এই প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ থেকে প্রতিবছর ইউসিমাসের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত  শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে বিজয়ীর কৃতিত্ব অর্জন করে।  
ইউসিমাস বাংলাদেশের মেধাবী শিশুদের অনন্য এই অর্জন উপলক্ষে ১৭ ডিসেম্বর মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজন করা হয় বিশেষ সংবর্ধনা ও মিডিয়া কনফারেন্স। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন লাইফটিভি’র সম্পাদক সিনিয়র সাংবাদিক আনোয়ার হক। আলোচনায় অংশ নেন ইউসিমাস বাংলাদেশ’র চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ ফ্রাঞ্চাইজি মো. আহসান কবির এবং পরিচালক ও প্রধান প্রশিক্ষক জান্নাতুল ফেরদৌসী।   
’ইউসিমাস’ (UCMAS = Universal Concept of Mental Arithmetic System)| বিজ্ঞানভিত্তিক এই প্রশিক্ষণটি ৪ থেকে ১৪ বছর বয়সী স্কুলগামী শিশুদের মেধা বিকাশের জন্য প্রশিক্ষণ প্রদান করছে। এই প্রশিক্ষণের মূল উপকণ হচ্ছে ‘এ্যাবাকাস’। ‘Abacus’  হচ্ছে একটি প্রাচীন গণন যন্ত্র। বিশ্বের নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা প্রমাণ করেছেন যে, এই গণন যন্ত্রটি ব্যবহারের মাধ্যমে গাণিতিক উপায়ে বর্তমানে শিশুদের অতি দ্রুত মেধার বিকাশ ঘটানো সম্ভব।  
ইউসিমাস প্রশিক্ষণে ‘Abacus’ ব্যবহারের মাধ্যমে প্রতিটি শিশুর সুপ্ত প্রতিভাকে বিকাশিত করে যেমন - মনোযোগ, স্মরণশক্তি, আত্মবিশ্বাস, উপস্থিত বু্দ্ধি, অংকে পারদর্শিতা, কল্পনাশক্তি, গতি ও নির্ভুলতা ও অন্যান্য গুনাবলী। 
শিশুরা যেন নিজেদের প্রকৃত মেধার সঠিক ব্যবহার করতে পারে এই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে একনিষ্ঠভাবে ইউসিমাস বাংলাদেশ কাজ করে যাচেছ দেশব্যাপী।  
উল্লেখ্য, তথ্য-প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ মো আহসান কবির ২০০৮ সাল থেকে ইউসিমাস বাংলাদেশ কার্যক্রমের সঙ্গে সংযুক্ত। তিনি ২০১৩ সালে ইউসিমাস  বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ও ন্যাশনাল ফ্রানচাইজি হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্ত হন। একজন কানাডিয়ান নাগরিক এবং আইটি বিশেষজ্ঞ হওয়া সত্ত্বেও কোমলমতি শিশুদের নিয়ে আধুনিক দেশ এবং মেধা সমৃদ্ধ জাতি গঠনে অসামান্য ভূমিকা রেখে যাচ্ছেন।

সাকসেস স্টোরি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর