ঢাকা, ১৭ অক্টোবর বৃহস্পতিবার, ২০১৯ || ২ কার্তিক ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
৬৫

কেন একসাথে ঝরলো এতগুলো মেধা?

সৈয়দ অহিদুজ্জামান ডায়মণ্ড 

প্রকাশিত: ২৩:১১ ১০ অক্টোবর ২০১৯  


পৃথিবীর কোনো বাবা মা-ই চাইবেন না তাঁর সন্তান খুন হোক বা খুনের অভিযোগে অভিযুক্ত হোক। ধনী হোক কাঙ্গাল হোক, পৃথিবীর সমস্ত বাবা-মা’র স্বপ্ন এবং চেষ্টা থাকে তাঁর সন্তানকে দেশের সেরা বিদ্যাপীঠে পড়ানোর। কারো চেষ্টা সফল হয় কারো হয়না। 
যখন কোনো সন্তান উচ্চশিক্ষা লাভের জন্য তাঁর পছন্দের শিক্ষাঙ্গনে ভর্তির সুযোগ অর্জন করেন এবং ভর্তি হন তখন বাবা-মা’র থেকে বড় অভিভাবকের স্থান হয় ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকের। এতদিন যে বাবা-মা সন্তানকে বুকে আগলে রেখেছিলেন এখন তিনি সন্তান থেকে বহুদূরে, কোনো এক গ্রামের নির্জন ঘরে। কবে ছুটি হবে, কবে খোকা উচ্চশিক্ষা নিয়ে ঘরে আসবে? 
কবে মা রান্না করে তাকে খাওয়াবে, খোকার পছন্দের খাবার। পথ চেয়ে দিন যায় রাত যায়। খোকা আসবে খোকা আসবে। কিন্তু। দূ:স্বপ্নের মত কোন এক ভোরে যদি বাবা-মা শুনেন তাঁর খোকা সহপাঠীর হাতে খুন হয়েছে বা যদি খুনের অভিযোগে অভিযুক্তের বাবা-মা, কাক ডাকা ভোরের আলোর সাথে শুনতে পান তার খোকা খুনের অভিযোগে অভিযুক্ত হয়ে পুলিশের হাতে বন্দি ! 
খুনির বাবা মা বলে সবাই ধিক্কার দিচ্ছি তাহলে কেমন হবে বাবা-মায়ের অবস্থা? একবার ভাবুন তো। 
তাঁরা উন্মাদের মত অভিভাবকতুল্য শিক্ষকের কাছে যদি জানতে চান - কেনো আমার খোকা খুন হলো? আমি তো আমার খোকাকে লাশ হবার জন্য আপনাদের হাতে তুলে দেইনি? 
কিংবা অভিযুক্ত খুনির বাবা মা-ই যদি প্রশ্ন করেন - কেনো আমার খোকা খুনি হলো? সে তো খুনির পরিক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে আপনার প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হয়নি? আমি তো আমার খোকাকে খুনি বানিয়ে তারপর আপনাদের হাতে তুলে দেইনি? 
মাত্র দু’তিন বছর! মাত্র দু’তিন বছরে, কি শাসন? কি শিক্ষা আমার বুকের ধন পেল, যে সে খুনি হলো? কেনো আমাদের স্বপ্নগুলো জমাট বাঁধা কালো অন্ধকারে মিশে গেল? 
আছে কোনো উত্তর? জানি, নেই। 
আজ লক্ষকোটি বাবা-মা’র একটি প্রশ্ন : কি শিক্ষা ওরা পেল? কি শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশ ও জাতিকে কাঁদিয়ে হতাশার সাগরে ফেলে একসাথে এতগুলো মেধা ঝরে গেল?