ঢাকা, ১৮ সেপ্টেম্বর বুধবার, ২০১৯ || ৩ আশ্বিন ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
২৬

গরুর মাংস আমদানি বন্ধের দাবি খামারিদের

প্রকাশিত: ১৭:০১ ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯  


বিদেশ থেকে হিমায়িত গরুর মাংস আমদানি প্রক্রিয়া বন্ধের দাবি জানিয়েছেন গরুর মাংস উৎপাদন ও প্রক্রিয়াজাতকরণের সাথে সংযুক্ত ১০টি সংগঠন। সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত  সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে অ্যানিমেল হেলথ কোম্পানিজ অ্যাসোসিয়েশনের (আহকাব) সভাপতি ড. নজরুল ইসলাম বলেন, ডেইরি ও ক্যাটল শিল্প দেশের একটি মৌলিক শিল্প। বিদেশ থেকে আমদানি করে এই শিল্পকে ধ্বংস করা যাবে না।

তিনি বলেন, বছরে মাংসের চাহিদা ৭২.৯৭ লাখ টন। গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে মোট মাংস উৎপাদন হয়েছে ৭৫.১৪ লাখ টন। চাহিদা মেটানোর পরও ২ দশমিক ১৭ লাখ টন মাংস উদ্বৃত্ত রয়ে গেছে। তাহলে কেন মাংস আমদানি করতে হবে?

 নজরুল ইসলাম বলেন, গত কয়েক বছরে বিদেশ থেকে অবাধে গরু চোরাচালান বন্ধের প্রেক্ষিতে দেশে ডেইরি ও ক্যাটল শিল্প বিকশিত হতে শুরু করেছে।

শিক্ষিত বেকার যুবক ও নারীরা গরু মোটা-তাজাকরণ ও দুগ্ধ শিল্পে নিজেদের আত্মনিয়োগ করেছেন। সরকার তাদের স্বল্প সুদে  ঋণ দিচ্ছে। বর্তমানে কোরবানির সময় দেশীয় গরু দিয়ে সম্পূর্ণ চাহিদা মেটানো যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পিকেএসএফ এর মহাব্যবস্থাপক ও প্রাণিসম্পদ গবেষণা বিভাগের সাবেক প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা শরীফ আহমেদ।

তিনি বলেন, কয়দিন পর যদি গরুর মাংস আমদানি করা হয়। আর ওই মাংসের সাথে শুকরের মাংস থাকে তাহলে এর দায় নেবে কে? যেহেতু বাংলাদেশ মাংস উৎপাদন করে তাহলে আমদানি করার প্রয়োজন হবে কেন?

বরং দেশে মাংস উৎপাদনে যেসব সমস্যা রয়েছে তা নিরসনের উদ্যোগ নেয়া জরুরি।
সংবাদ সম্মেলনে  আহকাবের সাবেক সভাপতি মমিন উদ দৌলা,ভেটেরিনারি অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব ডা. হাবিবুর রহমান মোল্লা, ডেইরি ফার্ম অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক. শাহ এমরান, পোল্ট্রি অ্যাসোসিয়েশনের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব খন্দকার মহসিন, বেঙ্গল মিটের হেড অব কমার্শিয়াল অ্যান্ড এক্সপোর্ট একেএম সাইদুল হক ভূঁইয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


এই বিভাগের আরো খবর