ঢাকা, ১৯ মে রোববার, ২০১৯ || ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
১২২

জাতি বা ধর্মকে নয়, ঘৃণা করুন জঙ্গীদের

সৈয়দ অহিদুজ্জামান ডায়মন্ড

প্রকাশিত: ১২:২৮ ১৪ মে ২০১৯  


ইসলাম একটি শান্তির ধর্ম। হযরত মোহাম্মদ (সা:) আল্লাহর প্রেরিত রাসুল। আল্লাহ বলছেন হযরত মোহাম্মদ (সা:) আমার বন্ধু। আমি মোহাম্মদকে (সা:) সৃস্টি না করলে দুনিয়া সৃস্টি করতাম না। ঈমানদার মুসলমান মাত্র আমরা মনেপ্রাণে একথা বিশ্বাস করি।

আল্লাহ এবং আল্লাহ রাসুলের দেখানো পথে ইসলাম পরিচালিত হয়। কোরআন হাদিসের মাধ্যমে বান্দাদের ইসলামের নিয়মাবলী অবগত করা হয়েছে। দাড়ি কিভাবে রাখতে হবে কতটা রাখতে হবে, পুরুষের কাপড় কতটুকু ওপরে রেখে নামাজ আদায় করতে হবে ইত্যাদি ইসলামে পরিস্কারভাবে বর্ননা করা হয়েছে।

কোনো ধর্মই চারটিখানি বিষয় নয়। বিশদভাবে না জেনে, না বুঝে একটি ধর্মের অনুসারির পোশাক পরিচ্ছদ দাড়ির গঠন ইত্যাদি সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য করা বা কটাক্ষ করা ঢালাওভাবে কোনো আখ্যা দেয়া কাম্য হতে পারেনা।

মুসলিম লেবাসধারি জঙ্গী যেমন আছে, তেমনি আছে হিন্দু লেবাসধারি, খ্রিস্টান লেবাসধারি, ইহুদি লেবাসধারি জঙ্গী। উগ্রবাদি বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের নজিরও আমরা দেখলাম রাখাইনে মুসলিম রোহিঙ্গা নিধনের মধ্য দিয়ে।

এইত কদিন আগে নিউজিল্যান্ডের মসজিদে ঢুকে যখন গুলি করে নামাজরত মুসল্লিদের হত্যা করা হলো, তখন হত্যাকারীর চেহারা কেমন ছিল? ঘাতকের ধরাণ করা ভিডিওতে বিশ্ববাসী দেখেছে কোন ধর্ম বা সম্প্রদায়ের মানুষ ছিল এই জঙ্গী। কুঠার আঘাতে বাবরী মসজিদ ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দেয়া বা শ্রীলঙ্কার মন্দিরে মানুষ হ্ত্যা কোনটাই সভ্য সমাজের কাজ নয়।

বহুশত বছর ধরে প্রমানিত আমাদের এই ভূখন্ড সৌহাদ্যপূর্ণ সম্প্রীতির ভূখন্ড। হিন্দু মুসলিম বৌদ্ধ খ্রীস্টান সাঁওতাল মালপাহাড়ি মুন্ডা ওরাও চাকমা গারো তথা বিভিন্ন ধর্ম ও গোত্রের মানুষ মিলেমিশে এখানে বসবাস করে আসছে যুগের পর যুগ ধরে। তাই বলে এখানে কখনো কি কোনো সংঘাত বা সংঘর্ষ হয়নি? হয়নি, একথা অস্বীকার করা যায়না। হয়েছে। কখনো কখনো কিছু স্বার্থান্বেষী মানুষের উসকে দেয়া আগুনে পুড়েছে কিছু ঘর, মরেছে কিছু মানুষ। তারপর, হিন্দু মুসলিম বৌদ্ধ খ্রীস্টান কাঁধে কাঁধ রেখে সম্মিলিত প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে।

অতএব শান্তিময় সম্প্রীতির এদেশটাকে অশান্তির আগুনে পোড়ানোর চেষ্টা কেউ করবেন না। কোটি কোটি ধর্ম প্রাণ মানুষ মনে কষ্ট পায় এমন উক্তি করা থেকে বিরত থাকুন। কোনো ধর্ম নিয়ে কথা বলার আগে ওই ধর্ম সম্পর্কে ভালো করে জানুন। দু:খজনক হলেও সত্য সারা বিশ্বে যখন মুসলমানদের টুপি দাড়ি এবং হেজাব নিয়ে কটাক্ষ করা হচ্ছে, তখন নিজের দেশের ভিতর থেকে এমন ভুল বয়ান দেশের জন্য মঙ্গল বয়ে আনবেনা। কোনো জাতি বা ধর্মকে নয় যারা জঙ্গী তাদেরকে ঘৃণা করুন।

লেখক : জাতীয় পুরষ্কারপ্রাপ্ত চলচ্চিত্রকার