ঢাকা, ২৭ জুন বৃহস্পতিবার, ২০১৯ || ১৪ আষাঢ় ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
৯১

দুই হিজাবী নারী, কয়েকটা ডিম, আর আমার প্রিয় কেনসিংটন

প্রকাশিত: ১৮:৩৩ ৫ এপ্রিল ২০১৯  


আপনি যদি কারো ওপর হামলা করেন, তিনি যদি ভয় পান, আপনি জিতে গেলেন?

হয়তো !

এটা দৃষ্টিভঙ্গির ব্যাপার।

আমি হামলার বিপক্ষে। কারোর মাঝে ভীতি তৈরির বিপক্ষে। হামলা সেটি শারীরিক হোক, আর মানসিক। তাতে কারোর শরীরে আঘাত লাগুক আর নাইবা লাগুক।

ব্রুকলিনের কেনসিংটনে চার্চ এভিনিউ আর ম্যাগডোনাল্ড এভিনিউর চৌমোহনায় বৃহস্পতিবার বিকেলে একটা ঘটনা ঘটেছে। বাইরের এলাকা থেকে কিছু স্বেচ্ছাসেবী এখানে এসে সিটি কাউন্সিলের পার্টিসিপেটরি বাজেটের ভোট সংগ্রহ প্রচারণার কাজ করছিলেন একজন চিকিৎসকের চেম্বারের সামনে দাঁড়িয়ে। সেখানে হঠাৎ করে তাদের লক্ষ্য করে ডিম ছুঁড়ে মারার ঘটনা ঘটেছে। স্বেচ্ছাসেবীদের মধ্যে দু-জন হিজাব পড়া ছিলেন। তারা ঘটনায় আতঙ্কিত হয়েছেন। ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর, মুসলমান ধর্মাবলম্বী, হিজাব পড়া নারীরা অনেক জায়গায় নিগৃহীত হয়েছেন। সোজাভাবে, ডিম ছুঁড়ে মারার ঘটনা 'হাস্যরসাত্মক' হিসেবে দেখতে পারেন অনেকে। কিন্তু, কেউ যদি একে ঘৃণাজাত অপরাধ হিসেবে দেখেন? কিংবা, বর্ণবাদী আচরণ?

বহুজাতিক একটা অভিবাসী সমাজে কোন ঘটনাকে ছোট করে দেখার অবকাশ নেই।

কারা ঘটিয়েছে ঘটনা? ঘটনার শিকার স্বেচ্ছাসেবীদের প্রতিক্রিয়া কি?

সিটি কাউন্সিল মেম্বার ব্রাড ল্যান্ডার-এর অফিসের কমিউনিটি এফেয়ার্স ডিরেক্টর Shahana Hanif, যিনি এই ভোট কার্যক্রমের সমন্বয়ক, তার ফেসবুকে লিখেছেন,  we couldnt trace who did it, and its hard to say if it was thrown from a window, roof, or passing car. just a ton of eggs at once! cops were not helpful, but we are in touch with NYC Commission On Human Rights and they’ve been much more sympathetic and are taking this attack seriously.

it is hard to make sense of all of this—but we don’t wanna stay quiet nor tuck it away as some inconsequential event. when we shared with some folks what had happened, they laughed, cuz ya, getting egged is a lightweight prank. don’t forget, after Trump was elected, homes of many Muslim families were vandalized...with eggs. hijabi sisters are routinely egged—egging hijab