ঢাকা, ২৭ সেপ্টেম্বর রোববার, ২০২০ || ১২ আশ্বিন ১৪২৭
good-food
৪৩

‘পেঁয়াজের মজুদ যথেষ্ট, আতঙ্কিত হয়ে বেশি কিনবেন না’

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ১৫:৫৫ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০  

দেশে ২-৩ মাস চলার মতো পর্যাপ্ত পেঁয়াজ মজুদ আছে। তাই আতঙ্কিত হয়ে ক্রেতাদের তা বেশি না কেনার আহ্বান জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। বুধবার দুপুর সোয়া ২টার দিকে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ আহ্বান জানান।

 

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, দেশে দুই কারণে পেঁয়াজের দাম বাড়ছে। প্রথমত, ভারত হঠাৎ করে রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছে। দ্বিতীয়ত, ‘প্যানিক বায়িং’ অর্থাৎ আতঙ্কিত হয়ে বেশি কিনছেন ক্রেতারা।

 

এছাড়া তিনি মনে করেন, ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছে-এ খবরে এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী পরিস্থিতির সুযোগ নিচ্ছে। অধিক মুনাফা লুফার পাঁয়তারা করছে।

 

সাধারণ মানুষের উদ্দেশে টিপু মুনশি বলেন, আতঙ্কিত হয়ে বেশি পেঁয়াজ কিনবেন না। ২-৩ মাস চলার মতো যথেষ্ট মজুদ আছে। ১ মাসের মধ্যে অবস্থা স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

 

তিনি বলেন, বিকল্প বাজার তথা মিয়ানমার, তুরস্ক, মিশর ও চীন থেকে পেঁয়াজ আমদানির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এরই মধ্যে তুরস্ক থেকে আমদানি করতে এলসি খোলা হয়েছে।

 

মন্ত্রী বলেন, প্রয়োজনে টিসিবির মাধ্যমে ১ লাখ টন পেঁয়াজ আমদানি করা হবে। আশা করি ১ মাসের মধ্যেই বাজার স্বাভাবিক করতে পারব।

 

কোনো ধরনের পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই সোমবার বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে ভারত। এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়তেই দেশের বাজারে নিত্যপণ্যটির দাম বাড়তে থাকে। মঙ্গলবার বিকাল নাগাদ কেজিপ্রতি দাম দ্বিগুণের বেশি ছাড়িয়েছে।

 

সোমবার পাইকারি ও খুচরা বাজারে প্রতিকেজি পেঁয়াজের মূল্য ছিল ৬০-৭০ টাকা। একদিনের ব্যবধানে তা সেঞ্চুরি ছাড়িয়ে যায়। অর্থাৎ কেজি প্রতি ৩০-৪০ টাকা বৃদ্ধি পায়। এখন কোথাও ১০০, কোনো জায়গায় ১১০ টাকায় মসলাজাত পণ্যটি বিক্রি হচ্ছে।

অর্থনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর