ঢাকা, ২৫ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার, ২০২১ || ১২ ফাল্গুন ১৪২৭
good-food
১১২

ভারতের ভ্যাকসিনে ভয়াবহ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া, মানুষও মরছে

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ২২:১৫ ২৩ জানুয়ারি ২০২১  

এখনও সম্পূর্ণ ছাড়পত্র পায়নি কোনও ভ্যাকসিনই। তৃতীয় ধাপের ট্রায়াল চলাকালীনই আপৎকালীন ভিত্তিতে অনুমোদন পেয়েছে সেরাম ইনস্টিটিউটের কোভিশিল্ড এবং ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিন। 


গেল ১৬ জানুয়ারি থেকে দেশটিতে শুরু হয়েছে গণটিকাকরণ। কিন্তু এর মধ্যেই বিপত্তি। পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার পাশাপাশি ভ্যাকসিন নেয়ার পরপরই মৃত্যু হয়েছে দু’জনের। এহেন পরিস্থিতিতে সতর্কতা জারি করেছে ভারত বায়োটেক।


একটি ফ্যাক্ট লিস্ট প্রকাশ করেছে তারা। সেখানেই বলা হয়েছে, যাদের আগে থেকে কয়েকটি উপসর্গ রয়েছে, তাদের এই ভ্যাকসিন না নেয়াই ভালো। কারণ টিকাকরণের পর সমস্যা দেখা দিতে পারে। 


ভারত বায়োটেক জানিয়েছে, যাদের অ্যালার্জির সমস্যা রয়েছে, শিশুদের স্তন্যপান করানো মা, গর্ভবতী মহিলাদের প্রথমে এই ভ্যাকসিন না নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এমনকি রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক রাখার ওষুধ যারা খান, জ্বর রয়েছে, রক্তপাতের সমস্যা রয়েছে, তাদের ক্ষেত্রে করোনা ভ্যাকসিন নেয়া নিরাপদ নাও হতে পারে বলে জানিয়েছে ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানিটি।


সম্প্রতি যাদের মৃত্যু রয়েছে, তাদের ক্ষেত্রে শ্বাসকষ্ট দেখা দিয়েছে ভ্যাকসিন নেয়ার পর। ভারত বায়োটেক জানায়, কোভ্যাক্সিন নিলে শ্বাসকষ্ট বেড়ে যেতে পারে। পাশাপাশি টিকা প্রাপকের মুখ ও গলা ফুলে যেতে পারে। সারা শরীরে ফুঁসকুড়ি দেখা দিতে পারে। শরীর দুর্বল হয় অনেক ক্ষেত্রেই।


টিকা নেয়ার আগে কী ওষুধ খাচ্ছেন এবং কী ধরনের অ্যালার্জি রয়েছে, তা চিকিৎসককে জানান ভ্যাকসিন গ্রহণ করার আগে। কোভ্যাক্সিনের প্রতিষেধকের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার মধ্যে সারা শরীরে অসম্ভব যন্ত্রণা, অঙ্গপ্রত্যঙ্গ ফুলে যাওয়া, চুলকানি, মাথাব্যথা, জ্বর, বমি বমি ভাব থাকতে পারে।


এখন পর্যন্ত ৩ লাখ ৮১ হাজার ৩০৫ জন ভারতীয় স্বাস্থ্যকর্মীকে টিকা দেয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে ৫৮০ জনের শরীরে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে।

করোনাভাইরাস বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর