ঢাকা, ২৬ ফেব্রুয়ারি বুধবার, ২০২০ || ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬
good-food
৭৬

মাতাপিতার সাথে সদাচরণে আল্লাহর নির্দেশ

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ১১:৫৩ ১৭ জানুয়ারি ২০২০  

কোনো সন্তান তার মাতাপিতাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে পারে, গায়ে হাত তুলতে পারে, থাক্কা দিয়ে ঘর থেকে বের করে দিতে পারে, ভরণপোষণ থেকে বঞ্চিত করতে পারে?

 

পারে। খুব পারে। বাংলাদেশে মাতাপিতার সাথে সন্তানের এ রূপ আচরণের অনেক নজির রয়েছে। আবার পশ্চিমা বিশ্বের মতো বাংলাদেশের অনেক সন্তানের কাছেও মা বাবারা বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই অনেক মাতাপিতার আল্টিমেট স্থান হচ্ছে বৃদ্ধাশ্রমে। বড় দুর্ভাগ্য আমাদের। বড় দুর্ভাগ্য এসব সন্তানদের।

 

আল্লাহ পবিত্র কোরআনে বলেন - "তোমরা পিতামাতার সাথে সদ্ব্যবহার করো, তোমাদের জীবদ্দশায় তাঁদের একজন বা উভয়ই যদি বার্ধক্যে উপনীত হন, তবে তাঁদের সামনে "উহ" শব্দটি উচ্চারণ করো না, তাঁদের সাথে বিরক্তি ও অবজ্ঞাসূচক কথা বলো না, তাঁদের ভৎসনা করো না, সবসময় সম্মানজনক কথা বল। আমি মানুষকে তার পিতা-মাতার সাথে সদ্ব্যবহার করার আদেশ দিয়েছি। তার জননী তাকে কষ্টসহকারে গর্ভে ধারণ করেছে এবং কষ্টসহকারে প্রসব করেছে। তাকে গর্ভে ধারণ করতে ও দুধ পান করাতে লেগেছে ত্রিশ মাস। এমন কি যখন সে পূর্ণ যৌবনে পৌঁছেছে এবং তার পর চল্লিশ বছর বয়সে উপনীত হয়েছে, তখন সে বলতে লাগলো, হে আমার পালনকর্তা, আমাকে এরূপ ভাগ্য দান কর, যাতে আমি তোমার নেয়ামতের শোকর আদায় করতে পারি, যা তুমি দান করেছ আমাকে ও আমার পিতা-মাতাকে এবং আমাকে এমন সৎকাজ করার তৌফিক দাও যা তুমি পছন্দ কর। তুমি আমার সন্তানদেরকে সৎ বানিয়ে আমাদের সুখ দাও। আমি তোমার কাছে তওবা করছি, আমি তোমার আজ্ঞাবহ বান্দাদের অন্তর্ভুক্ত। আমি এ ধরনের মানুষের কাছ থেকে তাদের উত্তম আমলসমূহ গ্রহণ করে থাকি, তাদের মন্দ কাজসমূহ ক্ষমা কর দিই। যে প্রতিশ্রুতি তাদের দিয়ে আসা হয়েছে, তা সত্য প্রতিশ্রুতি। সেই প্রতিশ্রুতি অনুসারে তারা জান্নাতের অন্তর্ভুক্ত হবে। আর যে ব্যক্তি তার পিতা-মাতাকে বলে, ধিক তোমাদের, তোমরা কি আমাকে এমন খবর দাও যে, আমি পুনরুত্থিত হবো, অথচ আমার পূর্বে বহু লোক গত হয়ে গেছে যাদের কেউই জীবিত হয়ে ফিরে আসেনি? আর পিতা-মাতা আল্লাহর দোহাই দিয়ে বলে, আরে হতভাগা, বিশ্বাস কর, আল্লাহর ওয়াদা সত্য। তখন সে বলে, এটা তো পূর্ববর্তীদের বস্তা পঁচা রূপকথা ছাড়া কিছু নয়।“

 

আসুন, আমরা সবাই বলি -
হে আমার পালনকর্তা, আপনি আমাদের এমন তৌফিক দান করুন যাতে আমরা আমাদের পিতা-মাতার জন্য জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত দোয়া, কৃতজ্ঞতা প্রকাশ, আমৃত্যু সেবা যত্ন ও ভালোবাসা দিয়ে যেতে পারি। আমাদের সন্তানদের আপনার প্রতি অনুগত ও সৎকর্মপরায়ন হওয়ার তৌফিক দান করুন। আর আমাদের এমন সন্তান দান করবেন না, যে হবে আপনার অবাধ্য ও বিপদ্গামী।