ঢাকা, ১৯ জানুয়ারি মঙ্গলবার, ২০২১ || ৬ মাঘ ১৪২৭
good-food
১৪৯

যেভাবে ফাঙ্গাসমুক্ত রাখবেন আচার

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ২২:৪১ ৯ ডিসেম্বর ২০২০  

আচার খেতে কে না ভালোবাসে। শেষপাতে আচার মুখের স্বাদ বদলে দেয়। বিশেষ করে শীতের দুপুরে রোদে বসে আচার খাওয়ার মজাই আলাদা। কিন্তু অনেক সময় চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায় বছরজুড়ে আচার ভালো রাখা যায় কী করে। শীতের সময় কোনও সমস্যা না হলেও বর্ষা আসতেই ফাঙ্গাস লেগে যায়। 


সাধারণত টক জাতীয় ফলমূলে পানি বা বাতাসের উপস্থিতিতে ইস্ট কিংবা ছত্রাক জন্মায়। নষ্ট করে দেয় স্বাদ। কষ্ট করে খেটেখুটে বানানো আচার খারাপ হয়ে যায়। তবে কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করে খুব সহজেই দীর্ঘদিন তা ফাঙ্গাসমুক্ত রাখা যাবে। 


দেখে নিন কিছু টিপস -

 

পানি ঝরিয়ে শুকিয়ে নিন
যে ফলের আচার বানাবেন সেগুলো ধোয়ার পর ভালো করে পানি ঝরিয়ে শুকিয়ে নিতে হবে। খুব ভালো হয় যদি সূর্যের আলোয় কিছুক্ষণ রেখে দেয়া যায়।

 

বেশি তেল দিন
আচার ভালো রাখার জন্য বেশি তেল ব্যবহার করতে হবে। দেখতে হবে আচারের ওপরে যেন তেলের আস্তরণ থাকে। আচারে বাতাস ঢুকতে বাধা দেয় তেল। এতে অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায় এবং ব্যাকটেরিয়া টিকতে পারে না। তেল যদি কম থাকে তাহলে পরে গরম করে আচারে মিশিয়ে দিতে পারেন।

 

পর্যাপ্ত লবণ দিন
প্রিজারভেটিভ হিসেবে কাজ করে লবণ। এটি স্বাদ ও গন্ধ অটুট রাখে এবং আচার সুস্বাদু করে তোলে। সঠিক মাত্রায় লবণ না পড়লে আচারে ব্যাকটেরিয়া বাসা বাঁধতে পারে এবং তা নষ্ট হয়েও যেতে পারে।


হলুদ মাখান
হলুদ, মেথি পাউডার এবং হিংও খুব ভালো প্রিজারভেটিভ হিসেবে কাজ করে।

 

সোডিয়াম বেনজোয়েট দিন
অ্যাসিড ও সোডিয়াম বেনজোয়েট দিলে আচার দীর্ঘদিন ভালো থাকে। লবণ, চিনি, ভিনিগার, মশলা দিয়ে তৈরি আচার কয়েক বছর পর্যন্ত ভালো থাকে।

 

কাঁচের পাত্রে রাখুন
আচার সংরক্ষণ করার জন্য সবসময় কাঁচের পাত্র ব্যবহার করা উচিত। প্লাস্টিকের জারে তা রাখলে তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে যায়। তবে যে পাত্রে আচার রাখবেন সেটি ভালো করে ধুয়ে রোদে শুকিয়ে নিতে হবে।

 

সূর্যের আলোয় দিন
প্রতিদিন অন্তত এক ঘণ্টা যদি আচারের বয়াম সূর্যের আলোয় রাখতে পারেন, তাহলে ফাঙ্গাস লাগার ভয় অনেকটাই কমে যায়।

 

ফ্রিজে সংরক্ষণ করুণ
ফ্রিজে আচার রাখলে তা দীর্ঘদিন ভালো থাকে। ঠান্ডা জায়গায় ফাঙ্গাস লাগতে পারে না। তবে অনেকেই ফ্রিজে রেখে আচার খাওয়া পছন্দ করেন না। সেক্ষেত্রে বাকি টিপসগুলো মানতে পারেন।


কাঠের খুন্তি দিয়ে রান্না
আচার বানানোর সময় স্টিলের বদলে কাঠের খুন্তি দিয়ে রান্না করুন। তাহলে তা ভালো থাকবে।

 

ছোট জায়গায় আচার রাখুন
খুব ভালো হয় যদি ছোট জায়গায় আলাদা আলাদা করে আচার রাখেন। প্রতিদিনের খাওয়ার জন্য একটি ছোট জায়গায় আচার রাখুন আর বাকিটা বড় জায়গায় রেখে দিন। বারবার আচারের জার না খোলাই ভালো। 


আচারে কখনও হাত লাগাবেন না। যে চামচে করে তা বের করবেন, দেখে নেবেন সেটাতে যেন পানি না লেগে থাকে। ছোট ছোট এই টিপসগুলো মেনে চললে সারাবছর আচার খাওয়ার মজা নিতে পারবেন!