ঢাকা, ১৬ মে রোববার, ২০২১ || ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
good-food
৮৯

আম খেলে পাবেন ৬ উপকার

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ১০:৪৮ ১৭ এপ্রিল ২০২১  

নিয়মিত আম খেলে শরীরে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমতে শুরু করে। এর ফলে স্বাভাবিকভাবেই হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা কমে। সম্প্রতি কয়েকজন আমেরিকান গবেষক দল বেঁধে আমের ওপর একটি পরীক্ষা চালিয়েছিলেন। আর তাতে এমন তথ্যই সামনে চলে এসেছে।


তবে ভাববেন না আম শুধু হার্টেরই খেয়াল রাখে। অস্ট্রেলিয়ান বিজ্ঞানীদের করা এক পরীক্ষায় দেখা গেছে, আমের ভেতরে উপস্থিত বেশ কিছু বায়ো-অ্যাকটিভ কম্পাউন্ড নানাভাবে শরীরের উপকারে লাগে। বিশেষত, ক্যান্সার রোগ প্রতিরোধ করার পাশাপাশি একাধিক মারণ রোগ দূরে রাখতে বাস্তবিকই ফলের রাজার কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। নিয়মিত আম খাওয়া শুরু করলে যে যে উপকার পাওয়া যায়-


প্রসবকালীন সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা কমে
বেশ কিছু স্টাডিতে দেখা গেছে, প্রেগন্যান্সির সময় প্রতিদিন একটা করে আম খেলে মেয়েদের শরীরে আয়রন, ভিটামিন এ, সি এবং বি৬-এর মাত্রা বাড়তে থাকে। এই উপাদানগুলো শুধু মেয়েদের শরীরের উন্নতি ঘটায় না, সেই সঙ্গে বাচ্চার শরীরের ক্ষমতা বাড়ায়। ফলে প্রসবকালীন কোনও সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা কমে।


ডায়াবেটিস দূরে রাখে
একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে, টানা ১২ সপ্তাহ এক পিস করে আম খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা কমতে শুরু করে। ফলে ডায়াবেটিসের মতো রোগ ধারেকাছেও ঘেঁষতে পারে না। আসলে আমের ভেতরে উপস্থিত ফাইবার এবং অন্যান্য অ্যান্টি-ডায়াবেটিক প্রপাটিজ এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। তাই পরিবারে যদি এই মারণ রোগের ইতিহাস থাকে, তাহলে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে এই ফল নিয়মিত খাওয়া শুরু করতেই পারেন। দেখবেন উপকার পাবেনই পাবেন!


অ্যাসিডের ভারসাম্য বজায় রাখে
আমের মধ্যে থাকা টার্টেরিক, ম্যালিক এবং সাইট্রিক অ্যাসিড শরীরের ভেতরে 'অ্যালকালাইন ব্যালেন্স' ঠিক রাখতে সাহায্য করে। আর যেমনটা আপনাদের সবারই জানা আছে, শরীর সুস্থ রাখতে অ্যাসিডের ভারসাম্য ঠিক রাখাটা কতটা জরুরি।


ত্বকের সৌন্দর্য বাড়ায়
বেশ কিছু কেস স্টাডিতে দেখা গেছে, সপ্তাহে ৩-৪ বার আমের রস দিয়ে যদি ভালো করে ত্বকের মাসাজ করা যায়, তাহলে স্কিনের ভেতরে পুষ্টির ঘাটতি যেমন দূর হয়, তেমনি ত্বকের বন্ধ হয়ে যাওয়া ছিদ্রগুলো খুলতে শুরু করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়তে শুরু করে।


হজম ক্ষমতা বাড়ায়
আমের ভেতরে বিশেষ এক ধরনের এনজাইম উপস্থিত রয়েছে, যা খাবার হজম যাতে ঠিকমতো হয়, সেদিকে খেয়াল রাখে। তাই এই ফল খেলে হজমের সমস্যা মাথা তুলে দাঁড়ানোর সাহসই পায় না। প্রসঙ্গত, চিকিৎসকদের মতে আমে থাকা ফাইবারও এক্ষেত্রে সহায়তা করে।


দৃষ্টিশক্তির উন্নতি ঘটায়
দীর্ঘক্ষণ কম্পিউটারের সামনে বসে কাজ করার জন্য কমছে চোখের পাওয়ার? কোনও চিন্তা নেই! আম খেলে, দেখবেন দৃষ্টিশক্তি নিয়ে কোনও চিন্তা থাকবে না। আসলে আমে উপস্থিত ভিটামিন এ, এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।