ঢাকা, ১৮ অক্টোবর সোমবার, ২০২১ || ৩ কার্তিক ১৪২৮
good-food
১১৫

গুণে অনন্য কচু

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ১২:৩০ ৮ অক্টোবর ২০২১  

শুধু স্বাদেই নয়, মুখিকচু গুণে অনন্য একটি সবজি। একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের সারাদিনের চাহিদার প্রায় ২৭ শতাংশ ফাইবার এই সবজি দ্বারা পূরণ করা সম্ভব। এটি হজমশক্তি বাড়ায়। এ ছাড়া এটি অতিরিক্ত গ্যাস, কোষ্ঠকাঠিন্যসহ বিপাকেও সহায়তা করে। এমনকি ডায়রিয়ার জন্যও বেশ উপকারী।

 

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এই সবজির জুড়ি অতুলনীয়। এতে থাকা ভিটামিন-সি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এতে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম থাকে, যা শরীরের কার্যক্ষমতার জন্য দারুণ কার্যকরী। হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়।

 

শরীরের রক্ত চলাচল সহজ করে। মুখিকচুতে থাকা আয়রন ও কপার রক্তে লোহিত কণিকা তৈরিতে সাহায্য করে; যার ফলে রক্তস্বল্পতা দূর করে। এতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ত্বকের লাবণ্য ধরে রাখতে সহায়তা করে থাকে। এতে বিদ্যমান উচ্চ মানের ভিটামিন-এ, সি এবং অন্যান্য অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সেল বা কোষ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া থেকে বাঁচায়।

 

এ ছাড়া এতে থাকা ভিটামিন-ই এবং এ ত্বক সুরক্ষায় দারুণভাবে কাজ করে। বিটা ক্যারোটিন দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে সাহায্য করে আর মুখিকচুতে এটি থাকায় এটি দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি করে। এতে থাকা উপকারী ফাইবার ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে বিশেষ ভূমিকা রাখে। মুখিকচুতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতেও সহায়তা করে।

 

তবে অনেকেই কচু খেতে চান না। কারণ তাদের ধারণা, কচু খেলে গলা চুলকায়। আসলে কচুতে যে ক্যালসিয়াম থাকে, সেটি ক্যালসিয়াম অক্সালেট নামক একটি লবণের আকারে থাকে। যার রাসায়নিক সংকেত CaC2O4 এবং এটি ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কেলাস (Crystal) আকরে থাকে।

 

কেলাসগুলো খুবই ক্ষুদ্র এবং বেশ ধারালো থাকে। এ লবণটি পানিতে খুব সামান্য পরিমাণ দ্রবীভূত হয়। ফলে কচু যখন রান্না করা হয়, তখন ক্যালসিয়াম অক্সালেটের কিছু কেলাস অদ্রবীভূত (সম্ভবত) অবস্থায় থেকে যায়। ধারণা করা হয়, এই ক্রিস্টালগুলোর কারণেই আমাদের গলা চুলকায়।