ঢাকা, ২৬ আগস্ট সোমবার, ২০১৯ || ১১ ভাদ্র ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
১৮৩

ভেঙে গেল পরীর বাগদান?

প্রকাশিত: ২০:২৮ ১১ জুন ২০১৯  


ভেঙে গেল পরীর বাগদান? দুই বছর বিনোদন সাংবাদিক তামিম হাসানের সাথে চুটিয়ে প্রেম করেছেন চিত্রনায়িকা পরীমনি। এরপর এ বছর ১৪ এপ্রিল তাঁদের বাগদান হয়। হঠাৎ তাঁদের দুজনের সেই পথ এলোমেলো হওয়ার খবর শোনা যাচ্ছে।


বাগদান অনুষ্ঠানের পরদিন পরীমনি বলেছিলেন, সামনে যেকোনো ১৪ এপ্রিল তাঁরা বিয়ে করবেন। সেভাবেই এগিয়েছে সবকিছু। বাতাসে ছড়িয়ে গেছে তাদের সম্পর্ক ভেঙে যাবার খবর। 

জানা গেছে, পরীমনির ফেসবুক পেজ থেকে বাগদানসহ তাঁদের দুজনের বিভিন্ন সময়ে তোলা অনেক ছবি সরিয়ে ফেলা হয়েছে। অনেক দিন দুজনের নতুন কোনো ছবি ওঠেনি তাঁর ফেসবুক পেজে। আর তাতেই সন্দেহ বিনোদনপাড়ার মানুষজনের। 

শোনা যায়, পরীমনি আর তামিমের বাগদান নাকি ভেঙে গেছে। তাঁদের ঘনিষ্ঠজনেরা বলছেন, প্রায় দেড় মাস হলো তাঁদের সম্পর্ক শেষ হয়ে গেছে। এখন দুজনের দুটি পথ।

মঙ্গলবার একটি শীর্ষ স্থানীয় জাতীয় দৈনিকে পরীমনি নানা কথা বলেছেন। এদিকে ওইজাতীয় দৈনিকে বিভিন্ন কথা বললেও কৌশলে এড়িয়ে গেছেন বাগদান ভেঙে যাওয়ার কথা। তবে পরীর কথায় পরিস্কার তামিমের সঙ্গে আর সম্পর্ক নেই।

তামিমের সঙ্গে বাগদানসহ বিভিন্ন সময়ে তোলা ছবি আপনার ফেসবুক পেজ থেকে সরিয়ে ফেলা হয়েছে। এমনকি আপনার আঙুলে বাগদানের আংটি নেই। অনেকে ধারণা করছেন, আপনাদের মধ্যে সম্পর্ক শেষ?

এ প্রসঙ্গে পরী বলেন, সব ছবি তো সরিয়ে ফেলা হয়নি। তবে এখন আর দুজনের নতুন কোনো ছবি দিচ্ছি না। আর রিংটা অনেক বড়, ওটা পরে থাকা যায়? বাগদানের পরের দিনই খুলে লকারে রেখে দিয়েছি।

আর সম্পর্ক তো সেটাই শেষ হয়, যেটা আসলেই হয়। আমি কাজকে ফোকাস করতে চাই, বয়ফ্রেন্ডের ছবি নয়। যেটা যেখানে দেওয়া উচিত, আমি শুধু সেটাই দেওয়ার চেষ্টা করছি এখন।

 এক প্রশ্নের জবাবে পরী বলেন, একসঙ্গে তো ছিলামই না, আলাদা হওয়ার কী আছে! কাজের সঙ্গেও যোগাযোগ দুবছর অফ রেখেছিলাম। তার চেয়ে নিশ্চয়ই এই প্রেমবিষয়ক ব্যাপারটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ না। অন্তত আমি সেটাই বিশ্বাস করি।

বাগদানের পর বিয়ের ঘোষণা দিয়েছিলেন, সে পথ বন্ধ হয়ে গেল? এ ব্যাপারে পরী বলেন, আমি বাগদানের সময়ই আগামী কোনো এক বছরের ১৪ এপ্রিল বিয়ের দিন ঠিক করে রেখেছিলাম। তবে বাগদান না হলে কোনোভাবেই বুঝতে পারতাম না, আমি বিয়ের জন্য একদমই প্রস্তুত না।

 দুজনের মধ্যে সম্পর্কের ফাটল ধরা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, একতরফা বলা ঠিক হবে না। শুধু যেটুকু না বললেই নয়, সেটা হলো আমার কাজকে কেউ যদি অসম্মান করে, সেখানে আমি কখনো একচুল আপস করব না।

প্রেম আমি কোনো লুকোচুরি ছাড়া ঢাকঢোল পিটিয়ে করেছি। কারণ এখানে সম্মানের জায়গা ছিল। একইভাবে আমার কাজও সম্মানের জায়গা। সেটাও নিজেদের বুঝতে পারা অনেক বেশি দরকার।