ঢাকা, ২৬ জানুয়ারি মঙ্গলবার, ২০২১ || ১২ মাঘ ১৪২৭
good-food
৯৭

স্ত্রীকে সুখী রাখার অব্যর্থ ১০ উপায়

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ২২:৪৭ ৫ জানুয়ারি ২০২১  

বিয়ে মানে দুজন মানুষের সঙ্গে দুটি পরিবারের বন্ধনও। তাই এ সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার দায়ও উভয়ের। জীবনে দুজনকেই কিছু আত্মত্যাগ করতে হয়। একসঙ্গে মানিয়ে গুছিয়ে চলতেও হয়। এরকমটা যেন না হয়, একজন শুধুই বলছেন; আর অপরজন শুনেই চলেছেন। বরাবরই ছেলেরা দাবি করেন মেয়েদের মন বোঝা খুবই জটিল। কিন্তু সংসারের চাবিকাঠি যখন তার হাতে সঁপে দিয়েছেন, তখন তো তাকে খুশি রাখতেই হবে। 

 

বিয়ে মানেই একসঙ্গে পথচলার অঙ্গীকার। তাই এ সম্পর্ককে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়াটাও একটা চ্যালেঞ্জ। এছাড়া সম্পর্কে নানা বাধা বিপত্তি আসতেই পারে। সবকিছু দূরে সরিয়ে কীভাবে ভালো থাকবেন দুজনে? স্ত্রীর ভালোবাসা পেতে আজীবন স্বামীরাই বা কোন কোন কাজ করবেন? রইল টিপস। এ বেলা পড়ে রাখুন। পরবর্তীতে এটিতেই বজায় থাকবে গৃহশান্তি।

 

স্ত্রীকে খোঁটা দেবেন না
রান্নায় কেন তেল বেশি হয়েছে কেন মোটা হয়ে যাচ্ছ- এসব বলে খোঁটা দেবেন না। এছাড়া তার ভুল সবসময় ধরবেন না। এমনকি যদি কোনও অনুষ্ঠানে তিনি অজান্তে কোনও ভুল করেন, তাহলে তাকে সবার সামনে অপমান করবেন না।

 

বিয়েকে গুরুত্ব দিন
বিয়ে মানেই আপনাদের মধ্যে তৈরি হয়েছে নতুন একটি সম্পর্ক। তাই সবকিছুর ঊর্ধ্বে স্বামী-স্ত্রী সম্পর্ককে গুরুত্ব দিন। স্ত্রীকে বাদ দিয়ে বাকিদের সঙ্গে সবসময় পরিকল্পনা করবেন না। মতামত দিন তার ইচ্ছেকেও।

 

স্ত্রীর জন্য গর্ববোধ করুন
স্ত্রী আপনাকে নিয়ে যথেষ্ট গর্বিত। তাই আপনিও স্ত্রীকে নিয়ে গর্ববোধ করুন। কখনও তাকে ছোট করবেন না। কারণ, তিনি আপনাকে বিয়ে করে সুখী। আপনার সঙ্গে সংসার করতেই নিজের বাড়ি ছেড়ে এসেছেন।

 

স্ত্রীর কথাতে গুরুত্ব দিন
স্ত্রী যা বলছেন সবসময় তা হেসে উড়িয়ে না দিয়ে মন দিয়ে শুনুন। কারণ, তিনি কখনও আপনাকে খারাপ উপদেশ দেবেন না। বরং আপনার কীসে ভালো হবে, সেটাই মন দিয়ে দেখেন। আপনি তার কথায় সায় দিলে আপনার স্ত্রীরও তা ভালো লাগবে।

 

স্ত্রী আপনার সঙ্গেই খুশি থাকতে চান
স্ত্রী আপনার সঙ্গেই খুশি থাকতে চান। তাই তিনি যদি কোথায় যেতে চান বা কোথাও নিয়ে যাওয়ার অনুরোধ রাখেন, অবশ্যই তা পালন করার চেষ্টা করুন। স্ত্রী সম্পূর্ণ তৈরি হয়ে শুনলেন আপনি সেখানে যেতে চান না। এতে তার খারাপ লাগে।

 

আপনার সম্মানের প্রতি সর্বদাই নজর থাকে তার
আপনার যথার্থ সম্মান বজায় আছে কিনা, সেদিকে তিনি সবসময় নজর রাখেন। তাই এটা আপনাকেও খেয়াল রাখতে হবে যে, সবাই যেন আপনার স্ত্রীকে সম্মান করেন।

 

সংযোগ ভালো থাক
ভাববাচ্যে কথা নয় স্ত্রীর সঙ্গে। কোনও সমস্যা হলে কিংবা কোনও কারণে রাগ হলে তা খুলে বলুন। ঘুরিয়ে কথা শোনাবেন না কিংবা অপমান করবেন না। এমনকি তৃতীয় কোনও ব্যক্তিকে দিয়েও কথা বলানোর চেষ্টা করবেন না। বরং নিজে সমস্যার সমাধান করুন। এতে সম্পর্ক ভালো থাকবে।

 

স্ত্রীর সঙ্গে আপনিও শিখুন
বিয়ে করে আসার পর থেকে একটি মেয়ে জীবন থেকে প্রতিনিয়ত শিখতে থাকে। একটি ছেলেও শেখে। এ শেখায় ভুল ত্রুটি থাকতেই পারে। তাই সবসময় স্ত্রীকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দেবেন না। বরং তাকেও শিখে নেওয়ার সুযোগ দিন।

 

সৎ থাকুন
যেকোনও সম্পর্কের ভিত্তি হলো বিশ্বাস। তাই অকারণে মিথ্যা না বলাই ভালো। একটা মিথ্যা ঢাকতে গিয়ে হাজারটা কথা বলতে হয়। সেখান থেকে সত্যি কথা বেরিয়ে আসে। যে কারণে স্ত্রীকে লুকিয়ে কোনও কাজ করবেন না। ধরা পড়ার সম্ভাবনা প্রবল।

 

কারণে অকারণে তাকে স্পেশ্যাল ট্রিট দিন
স্ত্রী সারাদিন হাজার কাজের মধ্যে ঠিক মনে রাখেন আপনার কেমন চা পছন্দ কিংবা মাংসের ঝোলের আলু আপনি কতটা পছন্দ করেন। সেই মতো খাবার বানিয়ে দেওয়ার চেষ্টাও করেন। এ চেষ্টা জারি থাক আপনার পক্ষ থেকেও। স্ত্রীকে বুঝিয়ে দিন তিনি আপনার কাছে কতটা স্পেশ্যাল। পছন্দের মিষ্টি, চকোলেট, ফুল এসব উপহার দিতেই পারেন।