ঢাকা, ২৭ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার, ২০২৪ || ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০
good-food
৪৭৫

যে কারণে বন্ধ হয়ে গেল ফুড ভিলেজ

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ১৬:২৫ ৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

ফুড ভিলেজ রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ (৫ আগস্ট) আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের সব কার্যক্রম স্থগিত করেছে। সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুলকে বলা হয় উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার। ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গের যেকোনো জেলায় যেতে হাটিকুমরুল পর্যন্ত যেতেই হয়। এরপর গাড়িগুলো চলে যায় বিভিন্ন পথে, বিভিন্ন জেলায়।

 

দূর দুরান্তের যাত্রীদের দীর্ঘ যাত্রা পথে বিরতির প্রধান স্থান হাটিকুমরুলের 'ফুড ভিলেজ'। প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাজারো মানুষ এই হাইওয়ে রেস্টুরেন্টে যাত্রা বিরতি করলেও আর কোনো গাড়ি সেখানে দাঁড়াবে না।

 

ফুড ভিলেজ রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ গতকাল আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের সব কার্যক্রম স্থগিত করেছে।এর ফলে, বেকার হয়ে পড়েছে প্রায় ৬ শতাধিক শ্রমিক-কর্মচারী।

 

ফুড ভিলেজের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার সাগর আহম্মেদ  জানান, '২০১৩ সালে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) কাছ থেকে লিজ নিয়ে রেস্টুরেন্টটি করা হয়েছিল। বর্তমানে হাটিকুমরুল গোলচত্বর এলাকায় ৪ লেনের মহাসড়কের পাশাপাশি তৈরি হচ্ছে আন্তর্জাতিক মানের ইন্টারচেঞ্জ। এর মাধ্যমে গোলচত্বরের ১ কিলোমিটার আগেই ভাগ হয়ে যাবে উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলের ২৭টি জেলার যানবাহন। এ কারণেই মূলত রেস্টুরেন্টটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।'

 

তিনি জানান, মহাসড়কের নলকা এলাকায় পুনরায় রেস্টুরেন্টটি চালু করার চিন্তা রয়েছে। এ জন্য জায়গা খোঁজা হচ্ছে। তবে খুব শিগগির সেটা সম্ভব হবে না।

 

পরিবহনের চাপ বাড়তে থাকায় একে একে প্রায় ডজনখানেক হাইওয়ে রেস্টুরেন্ট গড়ে উঠে। বর্তমানে চলমান উন্নয়ন প্রকল্পের কারণে এসব রেস্টুরেন্টের বেশিরভাগই বন্ধ হয়ে গেছে বা বন্ধ হওয়ার উপক্রম।

 

সিরাজগঞ্জ এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী সফিকুল ইসলাম বলেন, 'ফুড ভিলেজকে ২ দশমিক ৬৭ একর জায়গা ২০১৩ ও ২০১৮ সালে ৫ বছর মেয়াদী লিজ দেওয়া হয়েছিল। শর্ত অনুযায়ী লিজের মেয়াদ শেষ হয়েছে। এ ছাড়া, ইন্টারচেঞ্জ প্রকল্পে জায়গাটি প্রয়োজন হওয়ায় সরকার অধিগ্রহণের কাজও সম্পন্ন করেছে। তাই আমরা রেস্টুরেন্টের মালিকপক্ষকে জায়গাটি খালি করে দিতে বলেছি।'

জনদুর্ভোগ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর