ঢাকা, ২৭ জুন বৃহস্পতিবার, ২০১৯ || ১৪ আষাঢ় ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
৮০

বিশ্বের সবচে’ দামী ডিভোর্স

৩৫ বিলিয়ন ডলারে জেফ-বেজোসের বিচ্ছেদ

প্রকাশিত: ২৩:২৭ ৬ এপ্রিল ২০১৯  


রেকর্ড ৩৫ বিলিয়ন ডলারের বেশি মূল্যে অ্যামাজনের জেফ বেজোসের স্ত্রী ম্যাকেঞ্জির সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ চূড়ান্ত হয়েছে।

এটি বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল বিবাহবিচ্ছেদের ঘটনা। যার ফলে বিশ্বের তৃতীয় ধনী নারী হবেন অ্যামাজন কর্নধার জেফ বেজোসের প্রাক্তন স্ত্রী ম্যাকেঞ্জি।

এই বিবাহবিচ্ছেদের ফলে তিনি আমাজনের প্রায় তিন হাজার ছ’শো কোটি ডলার শেয়ারের মালিক হলেন।

যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ২ লাখ ৯৫ হাজার ১৮৩ কোটি টাকা।

এর আগে সবচেয়ে ব্যয়বহুল বিচ্ছেদ হয়েছিল আর্ট ডিলার অ্যালেক ওয়াইল্ডেনস্টাইন ও তার স্ত্রী জোসেলিনের। তারা ৩৮০ কোটি ডলারে বিচ্ছেদ করেছিলেন।

অ্যামাজনের প্রধান নির্বাহী জেফ বেজোসের কোম্পানিটির ১৬ দশমিক ৩ শতাংশ শেয়ারের মালিক। এর অর্থমূল্য ১৪৩ বিলিয়ন ডলার। বিচ্ছেদের চুক্তি অনুযায়ী, ওই শেয়ারের ৪ শতাংশ শেয়ারের মালিকানা পাচ্ছেন ম্যাকেঞ্জি।

তবে ওয়াশিংটন পোস্ট এবং বেজোসের স্পেস ট্র্যাভেল ফার্ম ব্লু অরিজিনের শেয়ারের ভাগও বেজোসের হাতেই ছেড়ে দিচ্ছেন ম্যাকেঞ্জি।

চলতি বছরের জানুয়ারিতেই ২৫ বছরের সম্পর্কের ইতি ঘটিয়ে বিচ্ছেদের পরিকল্পনার কথা টুইট করে জানিয়েছিলেন ম্যাকেঞ্জি।

জেফ সেই টুইট শেয়ার করেছিলেন। গত বৃহস্পতিবার তারা বিবাহবিচ্ছেদের কথা ঘোষণা করেছেন।

বর্তমানে জেফের বয়স ৫৫ বছর এবং ম্যাকেঞ্জির ৪৮। ম্যাকেঞ্জি লেখক। তাদের চার সন্তান রয়েছে। ২৫ বছর আগে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন জেফ এবং ম্যাকেঞ্জি। আর ঠিক পঁচিশ বছর আগে ১৯৯৪ সালেই অনলাইন-রিটেল প্রতিষ্ঠান অ্যামাজন তৈরি করেছিলেন জেফ।

আবার নিজেদের বিয়ের পঁচিশতম বছরেই মাইক্রোসফট এবং অ্যাপলকে হারিয়ে পৃথিবীর ধনীতম কোম্পানি হিসেবে উঠে আসে আমাজন।

 যে সময়কালে ধনকুবের হয়ে উঠছেন জেফ, সেই সময় একসঙ্গেই ছিলেন জেফ এবং ম্যাকেঞ্জি। বর্তমানে অ্যামাজনের সম্পত্তির পরিমাণ আট হাজার ন’শো কোটি ডলার।

ফোর্বস ম্যাগাজিন অনুসারে, সম্পত্তির নিরিখে নারীদের মধ্যে লরিয়েলের ফ্রানকয়েজ বেটেনকোর্ট মেয়ারস এবং ওয়ালমার্টের অ্যালিস ওয়ালটনের পরই তিনি রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার বিচ্ছেদের প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হওয়ার পর ম্যাকেঞ্জি টুইট করেন, ‘জেফের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হওয়ায় খুশি। এই প্রক্রিয়া চলাকালীন আমরা একে অপরের থেকে এবং আরও যাদের সাপোর্ট পেয়েছি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।’

অন্য একটি টুইটে জেফ বেজোস জানিয়েছেন, ‘ম্যাকেঞ্জি একজন অসাধারণ সঙ্গী, বন্ধু এবং মা। আমি জানি ভবিষ্যতে আমি তার থেকে আরও অনেক কিছু শিখব।