ঢাকা, ২৭ সেপ্টেম্বর রোববার, ২০২০ || ১২ আশ্বিন ১৪২৭
good-food
৭০

৮৩ জন প্রবাসীকে কোয়ারেন্টিন শেষে আদালতে প্রেরণ

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ১৯:৫৪ ১ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ভিয়েতনাম ও কাতার ফেরত ৮৩ জন প্রবাসীকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে আদালতে পাঠানো হয়েছে। এর আগে তাদের সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে গ্রেফতার দেখানো হয়।

মঙ্গলবার সকালে তুরাগ থানা পুলিশ তাদের জিঞ্জাসাবাদ শেষে ঢাকার আদালতে পাঠিয়েছে। ডিএমপির তুরাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুরুল মোত্তাকিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে ভিয়েতনাম ফেরত ৮১ জন ও কাতার ফেরত ২ জন প্রবাসীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ভিয়েতনাম ও কাতারে অবস্থানকালে তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

পুলিশের এ কর্মকর্তা বলেন, ভিয়েতনাম থেকে তাদের অপরাধের বিষয়টি জানানো হয়েছিল। সেই কারণে ৮৩ জনকে সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে (৫৪ ধারায়) গ্রেফতার দেখিয়ে এদিন সকালে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

তুরাগ থানা পুলিশ জানায়, বিদেশে অবস্থানকালে আসামিরা বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়ে। সেখানে তারা জেলখানায় ছিলেন। সেখান থেকে পরে তাদের বাংলাদেশে পাঠানো হয়। তারা ঠিক কী ধরনের অপরাধ করেছেন, তা এখনও জানতে পারেনি পুলিশ। তাই সন্দেহজনক হিসেবে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

ডিএমপির উত্তরা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) নাবিদ কামাল শৈবাল জানান, ভিয়েতনাম ও কাতার থেকে এসব বাংলাদেশি নাগরিককে ঢাকায় ফেরত পাঠানো হয়। এদিন সন্দেহজনক হিসেবে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

তিনি জানান, করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে আসামিদের সবাইকে উত্তরা দিয়াবাড়ী ক্যাম্পে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়। এরপর সোমবার কোয়ারেন্টিন শেষ হয়। এর মধ্যে ভিয়েতনামে যারা অপরাধ করেছেন, তাদের বিষয়ে বাংলাদেশ পুলিশের কাছে অভিযোগ আসে। সেই মতে, এদিন তাদের মধ্যে অভিযুক্ত ৮৩ জনকে পুলিশের কাছে হস্থান্তর করা হলে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়।