ঢাকা, ০৮ এপ্রিল বুধবার, ২০২০ || ২৪ চৈত্র ১৪২৬
good-food
৪৫

এবারো জামিন পেলেন না খালেদা জিয়া

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ১৮:৩৮ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। আদেশে বলা হয়েছে, তবে তিনি সম্মতি দিলে দ্রুত তাকে চিকিৎসা দিতে হবে এবং মেডিকেল বোর্ড চাইলে নতুন চিকিৎসক অন্তর্ভুক্ত করতে পারবেন।
এর আগে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি এক আদেশে উন্নত চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়া সম্মতি দিয়েছেন কি না, সম্মতি দিলে চিকিৎসা শুরু করা হয়েছে কি না এবং শুরু হলে কী অবস্থা তা জানাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্যকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। ২৬ ফেব্রুয়ারির মধ্যে এ বিষয়ে প্রতিবেদন সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল কার্যালয়ে পাঠাতে বলা হয়েছিল। এ বিষয়ে আদেশের জন্য বৃহস্পতিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য রাখেন হাইকোর্ট। ওই আদেশ অনুসারে গতকাল বিএসএমএমইউ থেকে প্রতিবেদন পাঠানো হয়। হাইকোর্টে দেয়া ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, খালেদা জিয়ার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ডের পরামর্শ অনুযায়ী তিনি চিকিৎসা নিতে সম্মত হননি।
বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হক সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে জামিন আবেদন বিষয়ে শুনানি শেষে এদিন আদেশ দেয়া হয়।
আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী জয়নুল আবেদীন। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।
গত ১৯ ফেব্রুয়ারি জামিন আবেদনটি উপস্থাপন করা হয়। গত ১৮ ফেব্রুয়ারি এটি হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় দায়ের করা হয়। জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে ৩ কোটি ১৫ লাখ টাকা লেনদেনের অভিযোগে বেগম খালেদা জিয়াসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ২০১০ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এ মামলায় ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আদালত ২০১৮ সালের ২৯ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং ১০ লাখ টাকা জরিমানা করে রায় ঘোষণা করেন। রায়ে মামলার অন্য আসামিদেরও একই সাজা দেয়া হয় এবং ট্রাস্টের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।
মামলার অন্য আসামিরা হলেন বেগম খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, হারিছ চৌধুরীর সাবেক এপিএস জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার এপিএস মনিরুল ইসলাম।
এ মামলায় জামিন চেয়ে আবেদন করলে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ করে দেন হাইকোর্ট। এরপর সেই খারিজ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করে জামিন চান তিনি। তবে গত ১২ ডিসেম্বর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দ্রুত তার জামিন নামঞ্জুর করে আদেশ দেন আপিল বিভাগ। তবে তার চিকিৎসা বিষয়ে পর্যবেক্ষণ দেয়া হয়।
উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজার রায় ঘোষণার পর খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেয়া হয়। বর্তমানে তিনি কারা হেফাজতে চিকিৎসার জন্য বিএসএমএমইউ হাসপাতালে রয়েছেন।