ঢাকা, ১৭ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার, ২০১৯ || ২ আশ্বিন ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
৩৭

বিরোধীদলীয় নেতা রওশন, জিএম কাদের চেয়ারম্যান

প্রকাশিত: ১০:০৯ ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯  


রওশন এরশাদকে সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা আর জিএম কাদেরকে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান করার মধ্য দিয়ে সৃষ্ট বিরোধের সমাধান হয়েছে। এছাড়া রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচনে সাদ এরশাদকে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য এ এসএম ফয়সল চিশতী এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, শনিবার রাত ৯টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত বারিধারার একটি ক্লাবে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গার দলের প্রেসিডিয়াম সদস্যদের এক সমঝোতা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে রওশন এরশাদ ও জিএম কাদেরের মধ্যে চলমান বিরোধের সমাধান করা হয়।

জানা গেছে, জাপার মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙার উদ্যোগে এই সমঝোতা বৈঠকে নেতৃত্ব নিয়ে দু পক্ষের বিরোধ নিস্পত্তি হয়।

বারিধারার সমঝোতা বৈঠক উপস্থিত ছিলেন জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, কাজী ফিরোজ রশীদ, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, সৈয়দ আবুল হোসেন বাবলা, মাসুদ উদ্দীন, ফখরুল ইমাম, মজিবুল হক চুন্নু প্রমুখ।

এব্যাপারে সৈয়দ আবুল হোসেন বাবলা যমুনা নিউজকে জানান, সমঝোতা বৈঠকে সমাধান হয়ে গেছে। আজ মহাসচিব বিষয়টি সংবাদ সম্মেলনে পরিস্কার করবেন। সংবাদ সম্মেলেন রওশন এরশাদ এবং জিএম কাদের উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

শনিবার রাত ১২টায় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি খন্দকার জালালী জানান, রবিবার (৮ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে দলের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে ব্রিফ করবেন দলের মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা।

গত এক সপ্তাহ ধরে জাপার চেয়ারম্যান ও সংদের বিরোধীদলীয় নেতা হওয়া নিয়ে দ্বন্দ্ব শুরু হয় জিএম কাদের ও রওশন এরশাদের মধ্যে। এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) এক সংবাদ সম্মেলনে জাপার একাংশ রওশন এরশাদকে দলের চেয়ারম্যান ঘোষণা করে। ওইদিনই সংবাদ সম্মেলন ডেকে জিএম কাদের বলেন, ‘রওশন এরশাদকে সম্মান করি, যতটুকু শুনেছি, তিনি নিজে থেকে নিজের কথা বলেননি। শৃঙ্খলা ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জাপা ভাঙেনি। কোনও ভাঙনের মুখে পড়েনি।

এরআগে, মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) বিকালে দলীয় প্যাডে নিজেকে সংসদে বিরোধীদলীয় নেতার পদে নিয়োগ দিতে স্পিকারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে চিঠি দেন জিএম কাদের। এরপর দিন বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) জিএম কাদেরের চিঠির বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে তা গ্রহণ না করার অনুরোধ জানিয়ে চিঠি দেন রওশন এরশাদ। এরই মধ্যে দিয়ে মূলত জাপায় গৃহবিবাদ শুরু হয়।


এই বিভাগের আরো খবর