ঢাকা, ২৩ মার্চ, ২০১৯ || ৯ চৈত্র ১৪২৫

পরীক্ষামূলক

LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
১১

বুড়িগঙ্গায় নৌকাডুবির ঘটনায় আরও ৪ লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত: ৯ মার্চ ২০১৯  


ঢাকায় বুড়িগঙ্গা নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় শিশুসহ আরও ৪ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করেছেন ডুবুরিরা। এ নিয়ে গেল দুদিনে ৫ জনের লাশ উদ্ধার করলেন তারা।

উদ্ধারকৃতরা হচ্ছেন নৌকাডুবির ঘটনায় গুরুতর আহত শাহজালালের মেয়ে মিম (৮), মাহি (৬), নিহত জামসেদার স্বামী দেলোয়ার হোসেন (৩২) ও তার ৬ মাস বয়সী শিশু সন্তান জোনায়েদ। এর আগে শুক্রবার দুপুরে দেলোয়ারের স্ত্রী জামসেদার লাশ উদ্ধার করা হয়।

নৌ-পুলিশ সূত্র জানিয়েছে, শনিবার সকাল সাড়ে ৭টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত বুড়িগঙ্গায় অভিযান চালিয়ে সদরঘাটের আহসান মঞ্জিলের কাছ থেকে মৃতদেহগুলো উদ্ধার করা হয়।

সদরঘাট নৌ-থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রাজ্জাক জানান, নৌকাডুবির ঘটনায় সাহেদা (৩২) নামে এক নারী এখনও নিখোঁজ রয়েছেন। তার স্বজনরা অপেক্ষার প্রহর গুনছেন। স্পিডবোড, নৌকা ও ট্রলার নিয়ে তাকে খোঁজা হচ্ছে। উদ্ধারে কাজ করে যাচ্ছে নৌবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলের সদস্যরা। দুর্ঘটনার পর থেকেই নৌ-পুলিশ নদীতে তল্লাশী চালাচ্ছে।

তিনি জানান, এখনও নিখোঁজ সাহেদা বেগমকে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। নিহতদের মরদেহ উদ্ধারের পর দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার মাধ্যমে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে মিটফোর্ড হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

এ ঘটনায় নিহত প্রত্যেকের পরিবারের সদস্যদের আর্থিক অনুদান দিয়েছে সরকার। ঢাকা জেলা প্রশাসন বিষয়টি দেখভাল করছেন।

গেল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে কামরাঙ্গীরচর থেকে শাহজালাল মিয়া পরিবারের সদস্যদের নিয়ে নৌকায় করে সদরঘাটে যাচ্ছিলেন। তারা সাতজন ছিলেন নৌকাটিতে। সদরঘাটের কাছাকাছি পৌঁছলে সুরভী-৭ লঞ্চের ধাক্কায় সেটি ডুবে যায়। এ সময় লঞ্চের পেছনে থাকা পাখার আঘাতে শাহজালালের দুই পা মারাত্মক আঘাতপ্রাপ্ত হয়।

নৌ-পুলিশের টহল দল শাহজালালকে উদ্ধার করে মিটফোর্ড হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়। পরে তাকে পঙ্গু হাসপাতালে পাঠায়। বাকিরা পানিতে ডুবে যায়। বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার জন্য ওই দিন রাতে লঞ্চে করে শরীয়তপুরে যাওয়ার কথা ছিল তাদের।


এই বিভাগের আরো খবর