ঢাকা, ১২ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার, ২০১৯ || ২৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
২২২

সতেজ-কর্মক্ষম রাখবে যেসব প্রাকৃতিক খাবার

যৌবন রাখবে অটুট

প্রকাশিত: ১২:৩২ ১০ আগস্ট ২০১৯  


সুস্থ দেহ ও সুন্দর মন। খুব সঙ্গত কারণে সবারই আকাঙ্খা এটি। বিশেষ করে আজীবন তারুণ্য ধরে রাখতে এবং যৌবনের রঙিন দিন অতিবাহিত করতে কার না ইচ্ছে করে। আর সেই ইচ্ছে পূরণের জন্য নিয়মিত পুষ্টিকর ও সেই সঙ্গে ভেজালমুক্ত খাবারের কোনও বিকল্প নেই। শুধু তাই নয়, যৌনজীবনে উদ্দীপনা আনতে নানা ধরনের ওষুধের সাহায্য নেন অনেকেই। 
বর্তমান জীবনযাপন ও খাদ্যাভ্যাসের কারণে আমাদের যৌনজীবনে শিথিলতা আসছে। প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় যদি থাকে এমন কিছু খাওয়ার যার মধ্যে রয়েছে জিনসিনোসাইড, তাহলে আপনার জীবনে ফিরে আসতে পারে যৌবন। 
এবার জেনে নিন এ জাতীয় ৫টি ভেষজ খাবারের নাম, যা কাজ করবে দারুন উত্তেজক হিসেবে -
১. সজনে ফুল / ডাঁটা : 
এক গ্লাস দুধে সজনে ফুল, লবন ও গোলমরিচ মিশিয়ে প্রতিদিন খেলে আপনার যৌন ক্ষমতা বাড়বে।
২. রসুন : 
রক্তে শর্করা ও কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে রসুন। ফলে প্রতিদিনের ডায়েটে যদি রসুন থাকে তবে যৌন উত্তেজনা বাড়বে। আফ্রিকান হেলথ সায়েন্সসও এটা প্রমাণ করেছে, আদার মতোই উপকারী রসুন।
৩. হিং :
রান্নায় আমরা হিং মেশাই। প্রতিদিন সকালে ১ গ্লাস জলে এক চিমটি হিং ফেলে খেলে আপনার কামনা বাড়বে। বিশেষজ্ঞদের মতে, যদি টানা ৪০ দিন ধরে রোজ ০.০৬ গ্রাম হিং খাওয়া যায় তাহলে পেতে পারেন সুস্থ যৌনজীবন।
৪. জিরা :
জিরার মধ্যে থাকা পটাশিয়াম ও জিঙ্ক যৌনাঙ্গে রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়। ফলে বাড়ে যৌন উদ্দীপনা। প্রতিদিন এক কাপ গরম চায়ে জিরা ফেলে খেতে পারেন উপকার পাবেন।
৫. আদা : 
বিভিন্ন ক্ষেত্রে আদার উপকারিতার কথা আমাদের সবার কম-বেশি জানা। সুস্থ যৌনজীবন বজায় রাখতেও অপরিহার্য্ হতে পারে আদা। আদার মধ্যে থাকা ভোলাটাইল অয়েল স্নায়ুর উত্তেজনা বাড়ায় ও রক্ত সঞ্চালনের মাত্রা ঠিক রাখে।
৬. মধু : ওয়েলস বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের মতে, নারী-পুরুষ উভয়ের ক্ষেত্রেই যৌন উত্তেজনা বৃদ্ধি ও যৌন স্বাস্থ্যকে সতেজ রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে চাকভাঙা মধু। পুরুষের যৌন হরমোন টেস্টোস্টেরনের ক্ষরণ ও বৃদ্ধিতে মধুর বিশেষ ক্ষমতা আছে বলে দাবি গবেষকদের। মধুর অন্যতম উপাদান বোরন নারী শরীরের যৌন হরমোন ইস্ট্রোজেন ক্ষরণেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে। মধু কেবল শারীরিকই নয়, মানসিক উত্তেজনাও বাড়ায়। সঙ্গে যোগ হয় যৌন হরমোন ক্ষরণ।