ঢাকা, ২৭ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার, ২০২০ || ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬
good-food
২০৭

মসজিদে  গিয়ে দোয়া চাইলেন চীনের প্রেসিডেন্ট

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ২০:২৮ ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

চীনে নতুন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর তা ছড়িয়ে পড়েছে ২৫টি দেশে।
এ অবস্থায় চীনের একটি লোকাল মসজিদ পরিদর্শণে যান প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং। তিনি সেখানে মুসলমানদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। করোনাভাইরাস থেকে দেশবাসীকে মুক্তি দিতে আল্লাহর কাছে মুসলমানদের দোয়া করতে বলেন। মসজিদে গিয়ে তার দোয়া কামনা করার ভিডিওটি সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।
শুধু তাই নয়, যেখানে চীনের মুসলমানদের কবর নিশ্চিহ্ন করে দেয়া হচ্ছে সরকারিভাবে। মসজিদগুলো ভেঙে দেয়ার ঘটনা ঘটছে। মুসলমানদের নির্যাতন চালিয়ে ধর্ম ত্যাগ করতে বাধ্য করা হচ্ছে।চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং নতুন করে কোরআন লেখার ঘোষণাও দেন। 
 সেই চীনে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর মুসলিম মেয়েরা প্রকাশ্যে মোনাজাত করেছে। চীন সরকার একাজে বাধা দেয়নি। অনেক মুসলমানের ধারনা এই মরণঘাতক ভাইরাস আল্লাহর একটি গজব। 


দেশটিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫শ ছাড়িয়ে গেছে। প্রাণঘাতি এই ভাইরাসে এখন পর্যন্ত চীনে আক্রান্তের সংখ্যা ২৪ হাজার ৩২৪ জন।

প্রসঙ্গত, চীনে দুই কোটি ৩০ লাখ মুসলমানের বসবাস এবং পশ্চিমাঞ্চলের নিংজিয়া প্রদেশে গত কয়েকশ বছর ধরে মুসলিমরা উল্লেখযোগ্য সংখ্যায় বসবাস করছে। হুই মুসলিমরা যদিও তাদের ধর্ম চর্চার ক্ষেত্রে স্বাধীন কিন্তু পশ্চিমাঞ্চলের জিনজিয়াং এলাকায় উইঘুর মুসলিমরা সরকারের দিক থেকে বেশ চাপের মধ্যে আছে।

দেশটির মানবাধিকার কর্মীরা বলছেন পশ্চিমাঞ্চলে জিনজিয়াং-এ সরকারের কড়া নজরদারি রয়েছে এবং জনসমাগমের এলাকায় মুসলিম মহিলাদের নেকাব ব্যবহারে কারণে অনেকে শাস্তির মুখোমুখি হয়েছে।

মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বলেছে, হাজার-হাজার উইঘুর মুসলিমকে চীন সরকার জোর করে 'শিক্ষা কেন্দ্রে' পাঠিয়েছে। সেখানে আটককৃতদের নিজের ধর্ম ত্যাগ করতেও বাধ্য করা হয়েছে।
সেই প্রেসিডেন্ট ঠেকায় পড়ে মসজিদে যেতে বাধ্য হলেন, সত্যি সবই আল্রাহর মহিমা।