ঢাকা, ১৭ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার, ২০১৯ || ২ আশ্বিন ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
৬৭

জাতীয় দলে না খেলেও অন্যতম সেরা কোচ তিনি 

প্রকাশিত: ১৩:১৫ ১৮ আগস্ট ২০১৯  


জাতীয় দলে কখনোই খেলেননি তিনি। নেই প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেট খেলার অভিজ্ঞতাও। তবে রয়েছে সমৃদ্ধ কোচিং ক্যারিয়ার। তিনি রাসেল ডমিঙ্গো। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ। 
কোচিং শুরু করেছেন ২৫ বছর বয়স থেকেই। প্রায় ১৯ বছরের ক্যারিয়ারে দায়িত্ব পালন করেছেন বিভিন্ন যুব দল, ফ্র্যাঞ্চাইজি দলসহ দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় দলেরও। 
জন্ম পোর্ট এলিজাবেথে, ১৯৭৪ সালে। ইস্টার্ন প্রভিন্সের বয়সভিত্তিক দলে খেলার সময়ই উপলব্ধি করে ফেলেন, ক্রিকেট খেলে বেশিদূর যেতে পারবেন না। তাই খেলা ছেড়ে দ্রুতই নাম লেখান কোচিংয়ে।
হাথুরু, হেসনসহ নানা জনের নাম শোনা গিয়েছিল। কিন্তু জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকান রাসেল ডমিঙ্গোই হলেন টাইগারদের আগামী ২ বছরের অভিভাবক। অবশেষে বাংলাদেশ ক্রিকেট পেলো প্রধান কোচ। 

ডমিঙ্গো ২৫ বছর বয়সে ইস্টার্ন প্রোভিন্সের দায়িত্ব নেয়ার মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করেন কোচিং ক্যারিয়ার। অবশ্য এরপর আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি। ২০০৪ সালে প্রোটিয়া ক্রিকেট বোর্ড ডমিঙ্গোকে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কোচ হিসেবে নিয়োগ দেয়। সেবার দক্ষিণ আফ্রিকা অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ দল নিয়ে বাংলাদেশ সফর করেন।

একই বছর ফ্র্যাঞ্চাইজি দল ওয়ারিয়র্সের কোচের দায়িত্ব নিয়ে ২০০৯-২০১০ মৌসুমে দলকে চ্যাম্পিয়ন করেন। ২০১০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা 'এ' দলের কোচের দায়িত্ব দেয়া হয় ডমিঙ্গোকে।

২০১১ সালে তৎকালীন দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন কোচ গ্যারি কার্স্টেনের সহযোগী হিসেবে জাতীয় দলের সাথে কাজ শুরু করেন তিনি। ২০১৩ সালে গ্যারি কার্স্টেন জাতীয় দলের কোচের দায়িত্ব ছাড়লে প্রোটিয়াদের হাল ধরেন ডমিঙ্গো। তার অধীনে ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এবং ২০১৫ বিশ্বকাপে দল যায় সেমিফাইনালে। সেসময় ডমিঙ্গোর কাজে সন্তুষ্ট হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড তার সাথে ২ বছরের চুক্তি বৃদ্ধি করেন। ২০১৭ সালে ওটিস গিবসন দক্ষিণ আফ্রিকার দায়িত্ব নিলে তাকে আবারো দায়িত্ব দেয়া হয় দক্ষিণ আফ্রিকা 'এ' দলের। সবশেষ টি-টোয়েন্টি গ্লোবাল লিগের দল প্রিটোরিয়া ম্যাভরিকের দায়িত্বে ছিলেন ডমিঙ্গো।


 

আসছে ২১ আগস্ট বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব গ্রহণের মধ্য দিয়ে আবারো জাতীয় দলের সাথে সম্পৃক্ত হবেন এই প্রোটিয়া। আগামী ২ বছর তার হাতেই থাকছে বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব। দেখার অপেক্ষা তার হাত ধরে কতটা সফলতা ধরা দেয়।