ঢাকা, ২৭ সেপ্টেম্বর রোববার, ২০২০ || ১২ আশ্বিন ১৪২৭
good-food
৪৩

করোনায় মারা গেলেন অভিনেতা কে এস ফিরোজ

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ১৫:১০ ৯ সেপ্টেম্বর ২০২০  

স্বনামধন্য অভিনেতা কে এস ফিরোজ আর নেই। (ইন্নালিল্লাহি….রাজিউন)। করোনা ভাইরাসে (কভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে  তিনি মারা গেছেন। মৃত্যুকালে এই অভিনেতা স্ত্রী ও তিন মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

মৃত্যুকালে এই গুণী অভিনেতার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর।  তিনি সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর ছিলেন।

সিএমএইচে নয় দিন ধরে চিকিৎসাধীন ছিলেন কে এস ফিরোজ। সাত দিন আগে তার করোনা পরীক্ষার রেজাল্ট পজিটিভ আসে।

কে এস ফিরোজের মেয়ে ব্যারিস্টার রাবিয়া জাহান ফিরোজ গণমাধ্যমকে বলেন, মঙ্গলবার দুইবার বাবার কার্ডিয়াক শকড হয়। এরপর থেকে শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। বুধবার সকালে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।’

এই অভিনেতার গ্রামের বাড়ি বরিশালের উজিরপুরের মশাং গ্রামে হলেও তার জন্ম ঢাকার লালবাগে। নাটদ্যল ‘থিয়েটার’র সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়ে অভিনয়ে কে এস ফিরোজের পথচলা শুরু। এই দলের হয়ে তিনি অভিনয় করেছেন ‘সাত ঘাটের কানাকড়ি’, কিংলিয়ার’ ও ‘রাক্ষসী’।

সৈয়দ মঞ্জরুল ইসলামের হুবুহু নাট্যরূপে কামাল উদ্দিন নীলুর নির্দেশনায় ‘কিংলিয়ার’ নাটকে নাম ভূমিকায় অভিনয় করে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছিলেন তিনি। টিভিতে তিনি প্রথম অভিনয় করেন দিলারা জামানের স্বামী শফিউজ্জামানের রচনায় ও জামান আলী খানের প্রযোজনায় ‘দীপ তবুও জ্বলে’ নাটকে। এতে তার বিপরীতে ছিলেন ডলি ইব্রাহীম।

১৯৬৭ সালে কে এস ফিরোজ বাংলাদেশে সেনাবাহিনীতে কমিশন পদে চাকরি নেন। ১৯৭৭ সালে মেজর পদে চাকরি থেকে অব্যাহতি নেন। তার আগে ১৯৭৪ সালের ১ নভেম্বর মাধবী’র সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।

কে এসে ফিরোজের তিন মেয়ে রয়েছে। তারা হচ্ছেন- নাদিয়া, সাদিয়া ও রাবেয়া জাহান ফিরোজ। কে এস ফিরোজ প্রথম ‘লাওয়ারিশ’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। এরপর বহুদিন বিরতি নেন চলচ্চিত্রে। এরপর আবু সাইয়ীদের ‘শঙ্খনাদ’, মুরাদ পারভেজ’র ‘চন্দ্রগ্রহণ’, ‘বৃহন্নলা’তে অভিনয় করেন। টিভিতে তার প্রথম আলোচিত নাটক জিয়া আনসারী প্রযোজিত ‘প্রতিশ্রুতি’।

কে এস ফিরোজ সম্প্রতি সকাল আহমেদ’র ‘ফুলমহল’ এবং মনিরুজ্জামানের ‘শূণ্যতা’ নাটকে অভিনয় করেছেন।

বিনোদন বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর