ঢাকা, ১৪ অক্টোবর সোমবার, ২০১৯ || ২৮ আশ্বিন ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
১২৫

বিশ্বকাপে মাশরাফির শেষ ম্যাচ  

টস হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ১৬:৩৮ ৫ জুলাই ২০১৯  


বিশ্বকাপ থেকে আগেই বিদায় নিশ্চিত হয়ে গেছে। শেষ ম্যাচটি কেবলই আনুষ্ঠানিকতার। তবুও, বিশ্বকাপ বলে কথা। যেখানে কেউ কাউকে ছাড় দিতে রাজি নয়। জয় নিয়ে দেশে ফেরার সংকল্প। সে লক্ষ্য নিয়েই আজ শুক্রবার ক্রিকেটের তীর্থভূমি লর্ডসে মুখোমুখি বাংলাদেশ এবং পাকিস্তান।

 

কাগজে-কলমে পাকিস্তানের বিদায় নিশ্চিত নয়। তবে, পুরোপুরি অসম্ভব একটি সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে পাকিস্তান।

এমন ম্যাচে মাশরাফির সঙ্গে টস করতে নেমে জিতলেন সরফরাজ আহমেদ। টস জিতে ব্যাটিংয়েরই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পাকিস্তান অধিনায়ক।

 

যদি সরফরাজ টস হেরে যেতেন, তাহলে মাঠে নামার আগেই বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিশ্চিত হয়ে যেত পাকিস্তানের। তবে ভাগ্য ভালো, টস হারতে হয়নি। জিতেই তারা এখনও টিকে রইলো।

 

বিশ্বকাপে মাশরাফি বিন মর্তুজার শেষ ম্যাচ এটি। তার খেলা নিয়ে সংশয় থাকলেও শেষ পর্যন্ত তিনি লর্ডসে আজ খেলতে নেমেছেন। সরফরাজ আহমেদের সঙ্গে টস করেছেন।

এই ম্যাচে দুটি পরিবর্তন এনেছে বাংলাদেশ। দলে ফিরেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এবং মেহেদী হাসান মিরাজ। বাদ দেয়া হয়েছে রুবেল হোসেন এবং সাব্বির রহমানকে।

 

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের সেমিফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা ছিল প্রবল। কিন্ত নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের জয়ে, আর ভারতের কাছে বাংলাদেশ হেরে যাওয়ায় সেই আশা শেষ হয়ে গেছে তাদের! তবে পাকিস্তানের বেলায় জটিল এক সমীকরণে সেই পথটা কিছুটা হলেও উন্মুক্ত! কিন্তু সেই সমীকরণ মেলানো এক কথায় অসম্ভব।

ক্রিকেটের তীর্থস্থান লর্ডসে তাই বাংলাদেশ-পাকিস্তানের লড়াইটা আনুষ্ঠানিকতা রক্ষার হলেও আপাতদৃষ্টিতে তা এখন মর্যাদার লড়াইয়ে রূপ নিয়েছে। লর্ডসে নিজেদের অভিষেক ম্যাচটা তাই জয় দিয়ে রাঙাতে চাইবে বাংলাদেশ। 

অবশ্য পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটিকে কেবল মর্যাদার লড়াই বলা যাবে না। মাশরাফির শেষ বিশ্বকাপ ও বাংলাদেশের শেষ ম্যাচটি জয়ে রাঙিয়ে দেশে ফেরার মিশনও সাকিবদের সামনে। আর এই কাজটি করতে পারলে পঞ্চম স্থানে থেকে শেষ করার সুযোগ থাকছে টাইগারদের সামনে!

পাকিস্তানের বিপক্ষে বিশ্বকাপে কেবল একবারই দেখা হয়েছে বাংলাদেশের। ১৯৯৯ সালে নর্দাম্পটনে শেষ হাসিটা হেসেছিল বাংলাদেশ। এবার তাই শতভাগ সাফল্য নিয়ে ফের বিশ্বকাপের মুখোমুখিতেও পাকিস্তানকে হারানোর দৃঢ় প্রত্যয় বাংলাদেশের।

 

বাংলাদেশ একাদশ

তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহীম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, লিটন দাস, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মেহেদী হাসান মিরাজ, সাইফউদ্দীন, মাশরাফি বিন মর্তুজা এবং মোস্তাফিজুর রহমান।

 

পাকিস্তান একাদশ

ফাখর জামান, ইমাম-উল হক, বাবর আজম, হারিস সোহেল, মোহাম্মদ হাফিজ, সরফরাজ আহমেদ, ইমাদ ওয়াসিম, শাদাব খান, মোহাম্মদ আমির, ওয়াহাব রিয়াজ, শাহিন আফ্রিদি।