ঢাকা, ১৪ জুলাই রোববার, ২০২৪ || ৩০ আষাঢ় ১৪৩১
good-food
৬২

পানিতে লেবু মিশিয়ে খেলে কি ওজন কমে

লাইফ টিভি 24

প্রকাশিত: ২৩:০০ ৬ জুলাই ২০২৪  

বর্তমান সময়ে শরীরের ওজন বাড়া নিয়ে অনেকেই চিন্তিত। নানা কারণেই বাড়তে পারে শরীরের ওজন। সবাই চান সহজ পদ্ধতি ও কম সময়ে ওজন কমাতে। সেক্ষেত্রে অনেকের কাছেই পরিচিত একটি পদ্ধতি কুসুম গরম পানিতে লেবু দিয়ে পান করা। কিন্তু এভাবে পানি পানে কি আসলেই ওজন কমে? এ বিষয়ে জানব ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল অ্যান্ড কার্ডিয়াক সেন্টারের পুষ্টিবিদ শরীফা আক্তার শাম্মীর কাছ থেকে।

 

এই পুষ্টিবিদ জানান, ওজন নিয়ন্ত্রণে আনার ক্ষেত্রে প্রথম কথা স্বাস্থ্যসম্মত জীবনযাপন করা। কেউ যদি মনে করেন কেবল লেবুপানি পান করে ওজন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসবেন, সেটা সম্ভব নয়। সুষম খাবার, ব্যায়াম, পর্যাপ্ত ঘুম ইত্যাদি বিষয় মেনে চলার পাশাপাশি লেবুপানি পান করলে তা ওজন কমাতে সাহায্য করে। ওজন কমানোর ক্ষেত্রে শরীরের বিপাকীয় হার বাড়াতে পারলে ওজন দ্রুত কমে। পানির মতো লেবুপানিও শরীরের বিপাকীয় হার বাড়াতে সাহায্য করে।

 

 

শরীফা আক্তার শাম্মী বলেন, আমাদের প্রায় সবারই সকালে ঘুম থেকে উঠে চা বা কফি পান করার অভ্যাস রয়েছে। যারা ওজন কমাতে চান, তারা সকালে চা বা কফির পরিবর্তে কুসুম গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে পান করতে পারেন। এটি শরীরের বিপাকীয় হার বাড়ায় এবং খাবার দ্রুত হজমে সাহায্য করে। আবার খালি পেটে লেবুপানি পান করলে ক্ষুধাও তুলনামূলক কম লাগে। ফলে খাবার গ্রহণের পরিমাণও কমে। এভাবে শরীরে কম ক্যালরি প্রবেশ করে। এ ছাড়া লেবুপানি পান করার পর ব্যায়াম করলে ক্যালোরি ক্ষয়ের পরিমাণ বাড়ে। এভাবে লেবুপানি দ্রুত ওজন কমাতে সাহায্য করে।

 

যারা ওজন কমাতে চান তাদের অনেকেরই মিষ্টি জাতীয় শরবত, সফট ড্রিংকসের প্রতি আকর্ষণ থাকে। ওজন কমাতে চাইলে তখন এসব পানীয় পরিহার করে লেবুপানি পান করতে পারেন। এতে তৃষ্ণাও মিটবে, আবার শরীরে ক্যালরিও কম প্রবেশ করবে।

 

 

 

লেবুপানির অন্যান্য উপকারিতা

  • লেবুতে থাকে ভিটামিন 'সি', যা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। ফলে লেবুপানি পান করলে তা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে এবং শরীরের কোষকে ক্ষতিকর ফ্রি-র‍্যাডিকেল থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করে।
  • লেবু পানি শরীরকে হাইড্রেটেড রাখতে সহায়তা করে। এটি শরীরকে ডিটক্সিফাই করে, অর্থাৎ দূষিত পদার্থ শরীর থেকে বের করে দিতে ভূমিকা রাখে।
  • সকালে এক গ্লাস লেবুপানি খেলে হজমশক্তি বাড়ে। এ ছাড়াও কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যাও দূর হয়।

 

  • লেবুপানি শরীরে ভিটামিন 'সি'র ঘাটতি পূরণ করতে পারে।
  • লেবুপানি পানে লেবুতে থাকা উপকারী উপাদান ত্বক উজ্জ্বল ও টানটান রাখতে সাহায্য করে। ভিটামিন 'সি'র কোলাজেন ত্বকের সুরক্ষায় কাজ করে।
  • লেবুপানি পান করলে কিডনিতে পাথর হওয়ার ঝুঁকি কমে।
  • লেবুপানি পান করলে শরীর ও মন সতেজ থাকে এবং ক্লান্তিভাব কম হয়।

 

সতর্কতা

 

  • লেবুতে থাকে সাইট্রিক অ্যাসিড। সেই কারণে যাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা আছে, তাদের লেবুপানি পানে অসুবিধা হতে পারে। এক্ষেত্রে তারা লেবুপানি পান করা থেকে বিরত থাকবেন বা চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন।
  • অতিরিক্ত লেবুপানি পানে অ্যাসিডিটির সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই এটি একটানা পান না করে বিরতি দিয়ে পান করা ভালো। দিনে দুইবারের বেশি লেবুপানি পান না করাই উত্তম।
  • লেবু পানিতে ভিটামিন 'সি'র পরিমাণ অনেক বেশি হওয়ায় এটি দাঁতের এনামেলের ক্ষতি করতে পারে। তাই লেবুপানি পানের পর ভালোভাবে কুলি করে মুখ পরিষ্কার করতে হবে।