ঢাকা, ১৭ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার, ২০১৯ || ২ আশ্বিন ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
২৩৫

বাংলাদেশ-উইন্ডিজ ম্যাচের নো বল নিয়ে স্টেইনের প্রশ্ন

প্রকাশিত: ১৯:০৬ ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮  


সদ্য সমাপ্ত বাংলাদেশ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ টি-টোয়েন্টি সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচের সেই নো বল বিতর্ক নিয়ে মুখ খুলেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার কিংবদন্তিতুল্য পেসার ডেল স্টেইন।

গেল শনিবার হোম অব ক্রিকেট মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচটি হয়। ওই ম্যাচে বাংলাদেশ ইনিংসে প্রথম তিন ওভারে মোট ছয়টি নো ও ওয়াইড দেন উইন্ডিজ বোলাররা। পরের ওভারটি করেন সফরকারী দলের পেসার ওশানে থমাস। সেই ওভারে দুইটি নো বল ডাকেন অনফিল্ড আম্পায়ার তানভীর আহমেদ। কিন্তু টেলিভিশনের পর্দায় অ্যাকশন রিপ্লেতে দেখা যায়, তার সিদ্ধান্ত ছিল ভুল। আদতে সেটি নো বল ছিল না। এরপর উত্তপ্ত হয়ে ওঠে মিরপুরের পরিবেশ।

প্রতিবাদ জানিয়ে ক্যারিবীয় অধিনায়ক কার্লোস ব্র্যাথওয়েট ম্যাচ অফিসিয়ালের সঙ্গে বিতণ্ডায় জড়ান। ভুল সিদ্ধান্তটি উইন্ডিজের বিপক্ষে যাওয়ায় আম্পায়ার ও ম্যাচ অফিসিয়ালদের পড়তে হয় অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতিতে। ম্যাচ শেষে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়লেও এ নিয়ে বেশ অসন্তোষ জানান ক্যারিবীয়রা।

১৯১ রান তাড়া করতে নামা বাংলাদেশের ৩ ওভার ৪ বলে ছিল ৪২ রান, পতন ঘটে এক উইকেট। এমন সময় থমাসের বলে মিড উইকেট দিয়ে চার মারেন লিটন দাস। পরে রিপ্লেতে দেখা যায়, নো বল হয়নি সেটি। যদিও নো বলের সংকেত দিয়ে বসেন আম্পায়ার । ফ্রি হিট পেয়ে সেই সুযোগের সর্বোচ্চ ব্যবহার করেন লিটন। লং অন দিয়ে হাঁকান বিশাল ছক্কা। পরের বল ওয়াইড দেন ওশানে থমাস। ষষ্ঠ বলে নো ডাকেন একই আম্পায়ার। লিটন সেটি তুলে মারেন। তবে মিড অফে সহজে তালুবন্দি হয় ক্যাচ। কিন্তু ফ্রি হিটের কল্যাণে বেঁচে যান। টেলিভিশনের পর্দায় অ্যাকশন রিপ্লেতে ফের দেখা যায়, সেটিও ছিল ভুল সিদ্ধান্ত। বোলার থমাসের পায়ের কিছু অংশ দাগের মধ্যেই ছিল।

ঘটনার পর ক্যারিবীয় ক্রিকেটাররা তীব্র প্রতিবাদ জানালে মাঠে অনফিল্ড আম্পায়ারদের ভূমিকা কতটা কার্যকর তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। নো বলের মতো স্পর্শকাতর বিষয়ে তৃতীয় আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত প্রদানের সুযোগ না থাকায় বোলাররা অবিচারের শিকার হন কি না এমন প্রশ্নও ওঠে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

নো বলের ক্ষেত্রে অন ফিল্ড আম্পায়ার তৃতীয় আম্পায়ারের কাছে সহায়তা না চাইলে তিনি কোনো সিদ্ধান্ত প্রদান করতে পারেন না। ডেল স্টেইনও এই ইস্যুতে নিছক দর্শক হয়ে থাকতে পারেননি। নিজের মতামত জানিয়েছেন তিনিও। এমন ইস্যুতে কেন তৃতীয় আম্পায়ার বা টেলিভিশন আম্পায়ার সিদ্ধান্ত প্রদান করেন না এমন প্রশ্ন রেখেছেন এ প্রোটিয়া পেসার।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে স্টেইন বলেন, বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলার নো বলের ঘটনাটি এইমাত্র দেখলাম। তৃতীয় আম্পায়ার সব ধরনের টিভি প্রযুক্তি নিয়ে বসে থাকেন। ফ্রন্ট ফুট, বাউন্সার, উচ্চতা- এসব বিষয় তদারকি করে তিনি কি ব্যাটসম্যানের প্রান্তে থাকা অনফিল্ড আম্পায়ারকে তার সিদ্ধান্ত প্রদান করতে পারেন না?’