ঢাকা, ২৫ আগস্ট রোববার, ২০১৯ || ৯ ভাদ্র ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
২৪৯

দেড়টা পর্যন্ত যোগাযোগ রাখতে পেরেছিলেন পলি

প্রকাশিত: ২২:২০ ২৯ মার্চ ২০১৯  


পলি কী জানতেন আজ-ই হবে শেষ অফিস। আজ-ই হবে শেষ কর্মদিবস। অফিসে। কিংবা এই প্রিয় পৃথিবীতে। দুনিয়ার শেষ মুহূর্তটি হবে এমনই, চোখের সামনে নিশ্চিত মৃত্যুর অপেক্ষা … !

বেলা দেড়টা পর্যন্ত যোগাযোগ রাখতে পেরেছিলেন। অতিকষ্টে যেতে পেরেছিলেন কর্মস্থল ১১ তলা থেকে ১২ তলা পর্যন্ত। এরপরই বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে সব যোগাযোগ। পরে খোঁজ মিললো হাসপাতালের হিমঘরে।  

ফ্লোরিডা খানম পলি। বৃহস্পতিবার রাজধানীর বনানীর এফআর টাওয়ারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে নিহত হন তিনিও।

শুক্রবার বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জে মরদেহ দাফন করা হয়েছে।

দুপুর ১টার দিকে তার মরদেহ চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জের বাড়িতে পৌঁছায়। এরপর বিকেল সাড়ে ৩টায় জগন্নাথপুর জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে জানাজা শেষে পলিকে বাবা-মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হয়।

 

নিহত পলি শিবগঞ্জ উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের ইউসুফ উসমান মনুর স্ত্রী। পৌর এলাকার মৃত আফজাল হোসেনের তৃতীয় কন্যা সন্তান ছিলেন তিনি। তার এ অকাল মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

 

ফ্লোরিডা খানম পলি স্ক্যানওয়েল লজিস্ট্রিক লিমিটেডের বিভাগীয় প্রধান ছিলেন। তার স্বামী একটি বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরি করেন।

বিয়ের পর থেকেই বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া এক ছেলে ফয়সাল ও স্বামীকে নিয়ে ঢাকার মিরপুরে স্থায়ীভাবে বসবাস করে আসছিলেন পলি।

 

পলির বড় বোনের মেয়ে ডা. ফাহিমা শামিম খুসবু জানান, তিনি তার খালার অফিস ভবনে আগুন লাগার খবর পেয়ে বেলা দেড়টা পর্যন্ত যোগাযোগ রাখতে পারেন। পরবর্তীতে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তিনি একটি টেক্স ম্যাসেজ তার খালার সেল নম্বরে দিয়ে রাখেন। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। মরদেহ সিএমএইচে নেয়া হয়। সেখানকার ডাক্তার সেই মোবাইল ফোনের ম্যাসেজ দেখে তার সঙ্গে যোগাযোগ করে মরদেহ শনাক্ত করে নিয়ে যেতে বলেন।


এই বিভাগের আরো খবর