ঢাকা, ১১ ডিসেম্বর বুধবার, ২০১৯ || ২৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬
LifeTv24 :: লাইফ টিভি 24
৭৯

ঝড়ের মাঝে জন্ম আশ্রয়কেন্দ্রে

২ নবজাতকের নাম রাখা হলো ‘বুলবুলি’

প্রকাশিত: ১০:৪৪ ১০ নভেম্বর ২০১৯  


প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আতঙ্কে আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছে উপকূলবাসী। এ দুর্যোগপূর্ণ মুহূর্তে আশ্রয়কেন্দ্রে জন্ম নিলো এক কন্যা শিশু। শনিবার মধ্যরাতে বাগেরহাটের মোংলা উপজেলার মিঠাখালীর এটিসি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আশ্রয়কেন্দ্রে শিশুটির জন্ম হয়। ঘূর্ণিঝড়ের সঙ্গে মিল রেখে শিশুটির নাম রাখা হলো ‘বুলবুলি’।

আবহাওয়া অফিস মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত এবং চট্টগ্রাম বন্দরকে ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দিলে চরাঞ্চলের মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান নেয়, যার মধ্যে গর্ভবতী মায়েরাও আছেন। বুলবুলির আঘাতের রাতে জন্ম নেওয়া কন্যা শিশু বুলবুলির মায়ের নাম হনুফা বেগম। বাবা বায়েজিদ শিকদার।

মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রাহাত মান্নান জানান, গর্ভধারিণী হনুফা বেগমের অবস্থা সঙ্কটাপন্ন ছিল। তার জন্য আগেই মোংলা পরিবার পরিকল্পনা অফিস থেকে ধাত্রী এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসক পাঠানো হয়েছিল। মধ্যরাতে নবজাতক কন্যার জন্মের পরই ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের নামানুসারে নাম রাখা হয় বুলবুলি। শিশু কন্যার বাবা বায়েজিদ শিকদার তার নবজাতক কন্যার নাম রেখেছেন বুলবুলি। নবজাতক কন্যা এবং তার মা হনুফা বেগম সুস্থ আছেন।  দুর্গম এলাকা এবং বৈরী আবহাওয়ায় চিকিৎসক পৌঁছাতে দেরি হয়। তাদের যত্ন নেয়ার জন্য চিকিৎসক নিয়োজিত আছেন।
বুলবুলির বাবা মোংলার মিঠাখালী ইউনিয়নের বাসিন্দা বায়েজিদ শিকদার একজন মৎস্যজীবী।

ইউএনও রাহাত মান্নান বলেন, বায়েজিদ সাগরে মাছ ধরতে গিয়েছিল। সে এখনো ফেরেনি। তবে তার খোঁজ পাওয়া গেছে।

তিনি আরও জানান, প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রসূতিকে ২০ হাজার টাকা দেয়া হবে।

এদিকে পটুয়াখালীর কলাপাড়ার জন্ম নেওয়া আরেকটি কন্যাশিশু নাম পেয়েছে বুলবুলি আক্তার বন্যা।

শনিবার দুপুরে উপজেলার নীলগঞ্জ আবাসনে আবুল কালাম ও হুমায়রা বেগমের কোলে আসে এই বুলবুলি।

নীলগঞ্জ এলাকার ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য প্রফুল্ল কুমার হালদার জানান, মা-মেয়ে দু’জনই সুস্থ আছে।